আইএস নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর তথ্যে ‘জাতি উৎকণ্ঠিত’

বিএনপির মুখপাত্র আসাদুজ্জামান রিপন বলেছেন, সংলাপের আহ্বান বিএনপির দুর্বলতা নয়। দেশ ও জনগণকে বাঁচাতে হলে সর্বদলীয় বৈঠক, জাতীয় ঐক্য ও জাতীয় সংলাপ হতেই হবে।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় নয়াপল্টনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন রিপন। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানাতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বিএনপি।

আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, আমরা শুরু থেকেই বলেছি— যুদ্ধাপরাধী-মানবতাবিরোধী অপরাধের সুষ্ঠু ও আন্তর্জাতিক মানের বিচার চাই এবং এ প্রশ্নে আমাদের সমর্থন রয়েছে। তারপরেও নিছক রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যে শাসকদল এক ধরনের ‘গোয়েবলসীয়’ প্রপাগান্ডা অব্যাহত রেখেছে।

এখন যে বিচার চলছে বিএনপি তা সমর্থন করে কিনা এমন প্রসঙ্গে সরাসরি কোনো উত্তর না দিয়ে তিনি বলেন, বিএনপি বিচার চায়। চলমান বিচার নিয়ে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন মহলের নানা পর্যবেক্ষণ রয়েছে। এ পর্যবেক্ষণগুলো ‘মিট’ (পূরণ)  করা সরকারের দায়িত্ব।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য বলেছিলেন, ‘যে মানুষ পুড়িয়ে মারে। তার সঙ্গে বসার ইচ্ছা নাই। তারপরেও রাজনীতির স্বার্থে, দেশের স্বার্থে বসে কথা বলছি। উনি যদি বলেন— খুনিদের, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হওয়া উচিত। বর্তমান যে বিচার হচ্ছে তা ঠিক। এটা সমর্থন করি। এই কথাটা ওনার মুখে আসলেই তখন বসার যোগ্যতা অর্জন করবেন।’

বিএনপির মুখপাত্র এ প্রসঙ্গে বলেন, সরকার প্রধান আজ সংবাদ সম্মেলনে আমাদের দল সম্পর্কে যে অভিযোগ করেছেন— তা নতুন কিছু নয়, এসব তিনি আগেও বলেছেন। এসব তিনি ও তার সহকর্মীরা বিরোধী দলের বিরুদ্ধে বলার জন্য মুখের বুলি হিসেবে প্রতিদিনই আওড়াচ্ছেন। আমরা এর নিন্দা করছি ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

আমরা সরকারকে স্মরণ করিয়ে দিতে চাই যে, জাতীয় ঐক্যের স্বার্থে সংলাপের আহবান জানানো বিরোধী দলের কোনো দুর্বলতা নয়।

রিপন বলেন, সরকারের সৌভাগ্য যে, বিরোধী দলের উপর নির্মম-নির্যাতনের স্টীম রোলার চালানোর পরও আমরা এই ভোটারবিহীন নির্বাচনে গঠিত সরকারের সাথে সংলাপে বসার প্রস্তাব দিয়েছি, শুধু দেশ-জাতি যাতে অমানিশার ঘোর অন্ধকারে নিপতিত না হয়।

দেশ ও জনগণকে বাঁচাতে হলে সর্বদলীয় বৈঠক, জাতীয় ঐক্য ও জাতীয় সংলাপ হতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *