লালমনিরহাটে ৪ কারারক্ষীর হাতে সাংবাদিক লাঞ্চিত

ওয়ালিউর রহমান রাজু, লালমনিরহাট \
পুর্ব শত্রæতার জের ধরে লালমনিরহাটের ৪ কারারক্ষীর হাতে সাংবাদিক শরিফুল ইসলাম রতন লাঞ্চিত হয়েছেন। গত রোববার ১৭ মে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় জেলা কারাগারের প্রধান ফটকে এ ঘটনা ঘটে। শরিফুল ইসলাম রতন দৈনিক আমার সংবাদ পত্রিকার লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত আছেন। শরিফুল ইসলাম রতন জানান, ২০১৯ সালের ২২ মে রাত ১০টার সময় লালমনিরহাট সদর উপজেলার বড়বাড়ি বাজার এলাকায় ১ বোতল ফেনসিডিল ও ৫ পিস ইয়াবাসহ হাতে-নাতে কারাগারের জেল সুপারের গাড়ি চালক ফিরোজ কবির ও কারাগারের সিআইডিকে আটক করেন ডিবি পুলিশ। এ ঘটনায় লালমনিরহাট সদর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়। মাদক সহ তাদের আটকের বিষয়টি সে সময় সাংবাদিক শরিফুল ইসলাম রতন একটি সংবাদটি প্রকাশ করায় কারাগারের জেল সুপারের গাড়ি চালক ফিরোজ কবির ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। সাংবাদিককে সায়েস্তা করার জন্য তখন থেকে সুযোগ খুঁজতে থাকেন তারা। এক পর্যায়ে গত রোববার ১৭ মে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় জেল সুপার কিশোর কুমার নাগ এর সাথে দেখা করতে জেলা কারাগারের প্রধান ফটকে যাওয়া মাত্র ফিরোজ কবিরের নেতৃত্বে কারারক্ষী জাহাঙ্গীর, খাদেমুল ইসলাম ও ওয়াযের আলী সাংবাদিক শরিফুল ইসলাম রতনকে জোড় পুর্বক টেনে হেচড়ে গেটের ভিতরে নিয়ে লাঠি দিয়ে বেধরক মারপিট করতে থাকে। তার আত্মচিৎকারে অন্যান্যরা সাংবাদিক রতনকে উদ্ধার করে। এসময় খবর পেয়ে জেল সুপার ঘটনা স্থলে আসেন এবং সাংবাদিক রতনকে তার অফিস কক্ষে নিয়ে যান। কারারক্ষীদের হাতে সাংবাদিক রতন লাঞ্চিত হওয়ার বিষয়টি সাংবাদিকদের মধ্যে জানাজানি হয়ে পড়লে তারা ছুটে আসেন জেলা কারাগারে। পরে তাকে উদ্ধার পুর্বক লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জানা গেছে, রতনের হাত-পা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে পিটিয়ে জখম করা হয়েছে । এ বিষয়ে লালমনিরহাট কারাগারের জেল সুপার কিশোর কুমার নাগ বলেন, কারারক্ষীর হাতে সাংবাদিক লাঞ্চিত হওয়ার বিষয়টি দুঃখজনক। বিষয়টি আমি শুনেছি। আমাকে ৪৮ ঘন্টা সময় দিন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। শরিফুল ইসলাম রতন বলেন, ইয়াবাসহ আটক কারারক্ষীদের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের জের ধরে এ ঘটনা সংগঠিত করেছে তারা। তিনি আরো বলেন, হামলার ঘটনাটি ইতিমধ্যে জেল সুপার, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে অবগত করেছি এবং থানায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *