উদার আকাশ পত্রিকা ও প্রকাশনের পক্ষ থেকে ‘প্রচারহীন বীরত্ব’ সম্মাননা ঢাকার সমাজকর্মী এএইচএম নোমানকে

সংবাদদাতা, কল্যাণী:
ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উদার আকাশ পত্রিকা ও প্রকাশন বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বাংলাদেশের মাতৃবন্ধু এএইচএম নোমানকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করেছে।
নদীয়া জেলায় কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপাচার্য গৌতম পাল উদার আকাশ পত্রিকা ও প্রকাশনের পক্ষ থেকে ‘প্রচারহীন বীরত্ব’ সম্মাননা এএইচএম নোমান-এর হতে তুলে দেন।
সম্মাননা প্রদানের সময় উপস্থিত ছিলেন, ভারতের ভাব ও ভাষা সমৃদ্ধি ‘উদার আকাশ’ পত্রিকা ও প্রকাশনের সম্পাদক ফারুক আহমেদ।
সমাজ কল্যাণে বিশেষ অবদানের জন্য বাংলাদেশের বিশিষ্ট সমাজকর্মী এএইচএম নোমানকে এই বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়।
“প্রচারহীন বীরত্ব” সম্মাননা গ্রহণ করার পর এএইচএম নোমান জানান, আমি গর্বিত। আগামীতে আরও বেশি বেশি মা ও মেয়েরাই দেশের কল্যাণে এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণে এগিয়ে আসবেন। আন্তর্জাতিক সম্মাননা কাজের প্রতি দায়বদ্ধতা বাড়াতে সাহায্য করবে।
এএইচএম নোমান বাংলাদেশের জাতীয় এনজিও ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেসন অব দি রুরাল পূয়র-ডরপ এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা।
এএইচএম নোমান বাংলাদেশে দরিদ্র মা‘দের জন্য ‘মাতৃত্বকালীন ভাতা’ প্রদান কার্যক্রম প্রবর্তন (মে ২০০৫) করেন। তার আবেদনের প্রেক্ষিতে ২০০৭-০৮ অর্থ বছর থেকে বাংলাদেশ সরকার সারা দেশে মাতৃত্বকালীন ভাতা প্রদান কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। এর পর দারিদ্র্য বিমোচনে মাতৃত্বকালীন ভাতা কেন্দ্রিক ‘স্বপ্ন প্যাকেজ’ কার্যক্রমও তিনি উদ্ভাবন করেন। এ কার্যক্রমটিও সরকার দেশের ১০টি উপজেলায় পাইলট অকারে বাস্তবায়ন করেছে। দরিদ্র মাদের মৌলিক অধিকার রক্ষায় সামাজিক বিনিয়োগ করে ‘পাবলিক পূয়র প্রাইভেট পার্টনারশীপ-পিপিপিপি’ এর মাধ্যমে ‘মা সংসদ’ প্লাটফরমের পাইলট বাস্তবায়নকারী। এ ধরণের কার্যক্রম বাস্তবায়ন করায় ইতোমধ্যে তিনি ‘মাতৃবন্ধু’ উপাধিতে ভূষিত হয়েছেন। তিনি ‘সর্বজনীন নির্বাচন ব্যবস্থাপনা পরিষদ’ ও ‘স্বাস্থ্যগ্রাম’ ধারণার প্রবক্তা ও বাস্তবায়নকারী।

জনাব নোমান, দারিদ্র্য বিমোচন ও মানবহিতৈষী কাজে অবদান রাখার জন্য ফিলিপাইন ভিত্তিক ‘গুসি আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার- ২০১৩’ লাভ করেন। তিনি বাংলাদেশের প্রথম ব্যক্তি যিনি এই সম্মানজনক এওয়ার্ড অর্জন করেন। দেশে নারীর ক্ষমতায়ন ও দারিদ্র্য বিমোচনের মাধ্যমে শান্তি প্রতিষ্ঠায় অবদান রাখার জন্য জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল (জেসিআই)- বাংলাদেশ কর্তৃক ‘জেসিআই বাংলাদেশ শান্তি সম্ভব এওয়ার্ড- ২০১৭’ লাভ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *