ভূরুঙ্গামারী উন্নয়ন সংস্থা’ নামক এনজিও’র আত্মপ্রকাশ

মাঈদুল ইসলাম মুকুল, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলাকে একটি উন্নত মডেল উপজেলা হিসাবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে ‘ভূরুঙ্গামারী উন্নয়ন সংস্থা’ নামে একটি এনজিও আত্মপ্রকাশ করেছে। শুক্রবার রাতে একটি ভার্চুয়াল সভায় এই ঘোষণা দেন দেশ- বিদেশে অবস্থানকারী ভূরুঙ্গামারীর সুধিমহল।

সংগঠনটি শিক্ষায় অনগ্রসরতা, দারিদ্রতা, বেকারত্ব, মাদক, নদী ভাঙ্গনসহ নানাবিধ সমস্যার সমাধানে কাজ করবে। দেশে-বিদেশে অবস্থানরত ভূরুঙ্গামারীর কৃতি সন্তানদের সমন্বিত উদ্যোগে আত্মপ্রকাশিত সংগঠনটি অচিরেই আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করবে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

জাতিসংঘে কর্মরত ভূরুঙ্গামারীর কৃতি সন্তান মেজবানুর রহমান লিমনের নেতৃত্বে মোটিভেট ভূরুঙ্গামারী, ডোনেট ফর ভূরুঙ্গামারী, আলোক বর্তিকা, জাগো বাহে ফাউন্ডেশন, স্বপ্নের বাংলাদেশসহ উপজেলার বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোকে একীভূত করে এরই মধ্যে তিনটি ভার্চুয়াল মিটিং অনুষ্ঠিত হয়েছে। মিটিংয়ে আলোকিত ভূরুঙ্গামারী বিনির্মানে ভূরুঙ্গামারীর স্বেচ্ছাসেবা সংগঠনগুলোর নেতৃবৃন্দ সংহতি প্রকাশ করে একটি শক্তিশালী সংস্থা প্রতিষ্ঠা করার প্রন্তাব পেশ করেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার (১৭ জুলাই) তৃতীয় ভার্চুয়াল সভায় ‘ভূরুঙ্গামারী উন্নয়ন সংস্থা’র নাম ঘোষণা করা হয়। সভায় বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর মোজাম্মেল হককে আহবায়ক করে ৫০ সদস্যদের একটি আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।
অল্প সময়ের মধ্যে সমাজ সেবা অধিদপ্তরে এনজিও রেজিষ্ট্রেশন চেয়ে আবেদন করা হবে জানা গেছে।

সংগঠনটির প্রধান উপদেষ্টা মেজবানুর রহমান লিমন বলেন, ভূরুঙ্গামারী একটি পশ্চাৎপদ উপজেলা। শিক্ষার মানহীনতা, বেকারত্ব, নদীভাঙ্গন, দারিদ্র্য, মাদকসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত এই অঞ্চল। সমস্যা যেহেতু আমাদের, সমাধান আমাদেরকেই বের করতে হবে। সমস্যার উত্তরণ করে ভূরুঙ্গামারীকে একটি মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে হলে সরকারী উদ্যোগের পাশাপাশি বেসরকারীভাবে কিছু কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণ করা জরুরি। ভূরুঙ্গামারীর রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে এলাকার সার্বিক উন্নয়নের স্বার্থে ‘ভূরুঙ্গামারী উন্নয়ন সংস্থার’ কার্যক্রমের সাথে একাত্ব হওয়ার উদাত্ব আহ্বান জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *