যশোরে স্থাপিত বিজিবি’র ‘ডাটা সেন্টার ডিজাস্টার রিকভারী সাইট’ এর শুভ উদ্বোধন

বিশেষ প্রতিবেদকঃ
বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর আভিযানিক কার্যক্রমকে আধুনিক, যুগোপযোগী ও গতিশীল করার লক্ষ্যে বিজিবি রিজিয়ন সদর দপ্তর, যশোরের আওতাধীন যশোর ব্যাটালিয়ন (৪৯ বিজিবি) এ একটি অত্যাধুনিক ডাটা সেন্টার ডিজাস্টার রিকভারী সাইট’ এর শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ দূপূর ১২০০ ঘটিকায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি উক্ত ‘ডাটা সেন্টার ডিজাস্টার রিকভারী সাইট’ এর উদ্বোধন করেন। এ সময় বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোঃ সাফিনুল ইসলাম, বিজিবিএম (বার), এনডিসি, পিএসসি এবং বিজিবি’র উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দসহ অন্যান্য স্বনামধন্য আইটি প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক ও ফিনান্সিয়াল প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আন্তর্জাতিক ভাবে ডাটা সেন্টার নির্মাণ এর গাইড লাইন্স অনুযায়ী প্রাকৃতিক দূর্যোগ বা অন্য যে কোন ধরনের দূর্ঘটনাবশত ডাটা সেন্টারের ডাটা ক্ষতিগ্রস্থের হাত থেকে রক্ষা করার লক্ষ্যে ভিন্ন ঝবরংসরপ তড়হব এ আরও বৃহৎ কলেবরে এই ডাটা রিকাভারী সাইট স্থাপনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। উক্ত পরিকল্পনা অনুযায়ী গত ২৯ জুন ২০১৮ তারিখে বিজিবি মহাপরিচালক মহোদয়ের নির্দেশক্রমে যশোর রিজিয়ন এলাকায় ডাটা সেন্টারের জন্য আপদ কালীন ব্যবস্থা হিসেবে ডিজাস্টার রিকভারী সাইট এর প্রাথমিক পর্যায়ে একটি স্থান নির্বাচন করা হয়। সে মোতাবেক অবকাঠামো ও Infrastructure এবং বিভিন্ন ইকুইপমেন্ট স্থাপন/সংযোজনের মাধ্যমে পরিকল্পনা অনুযায়ী ডিআর সাইট এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। বর্তমানে উক্ত ডিজাস্টার রিকভারী সাইট এর অবকাঠামো ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি স্থাপনের কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।

ডিজিটাল বাংলাদেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে ডাটা সেন্টার জগতে বিজিবি ডিজাস্টার রিকভারী সাইট একটি অনন্য মাইল ফলক হিসেবে বিবেচনা করা যায়। এই ডিজাস্টার রিকভারী সাইট এ কার্যক্রম সম্পন্নের মাধ্যমে বিজিবি একটি বিরাট সাফল্য অর্জন করতে সামর্থ হয়েছে এবং অন্যান্য বাহিনী ও সংস্থার সাথে তুলনা করলে এটি একটি অনন্য মাইলফলক হিসেবে বিবেচ্য হবে। যে কোন দূর্যোগ বা দূর্ঘটনায় ডাটা সেন্টারের সকল ডাটা সমূহ উক্ত ডিজাস্টার রিকভারী সাইট এ অধিক নিরাপত্তার সাথে সুরক্ষিত থাকবে। এছাড়াও, ডাটা সেন্টারে রক্ষিত সীমান্ত ব্যাংক এর ডাটা সংরক্ষণ ছাড়াও বাংলাদেশের ডিজিটাল ডাটা নিরাপত্তায় যে কোন সংস্থার জন্য অগ্রণী ভূমিকা রাখবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *