শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের ৭০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে টঙ্গীতে আলোচনা সভা দোয়া মাহফিল

মোঃ শাহজালাল দেওয়ান: টঙ্গী (গাজীপুর) থেকে :
গাজীপুরের জনপ্রিয় সংসদ সদস্য ও প্রখ্যাত শ্রমিকনেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের ৭০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে টঙ্গীতে দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকেলে টঙ্গীর চেরাগআলী ট্রাকষ্ট্যান্ড এলাকায় এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। টঙ্গী থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হকের সভাপতিত্বে এবং গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ¦ কাজী ইলিয়াস আহম্মেদের পরিচালনায় জন্মবার্ষিকী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি। গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মতি, সহ সভাপতি আসাদুর রহমান কিরন, বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন, সাবেক কাউন্সিলর সেলিম মিয়া, গাজীপুর মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কামরুল আহসান সরকার রাসেল, যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম, কাইয়ুম সরকার, আরিফুর রহমান পলাশ, বিল্লাল হোসেন মোল্লা, স্বেচ্ছাসেবকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শফিক, গাজীপুর মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি সনজিত মল্লিক বাবু, সহ সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেন,টঙ্গী থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান সরকার বাবু, টঙ্গী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি কাজী মঞ্জুর, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম, প্রমুখ।
শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের জন্মদিন উপলক্ষে টঙ্গী ছিল মিছিলের নগরীতে পরিণত হয়েছে। আওয়ামীলীগের প্রতিটি অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা ফেস্টুন, ব্যানার, প্লেকার্ড হাতে নিয়ে বাধ্যযন্ত্র বাজিয়ে আনন্দ উচ্ছাসে শ্লোগানে শ্লোগানে সমাবেশে যোগদান করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি বলেন, আপনারা আহসান উল্লাহ মাস্টারের স্মরণে আজ সমাবেশে জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে। আমি আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞ জানাচ্ছি। আমার বাবা শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার গাজীপুরের মাটি ও মানুষের প্রিয় নেতা ছিলেন। মৃত্যুর পরে আপনারা তার জন্য প্রতিবাদে মুখরিত হয়ে উঠেন। আমাকে আপনারা নির্বাচিত করে আপনাদের কাছে আমার পরিবার ঋণী। গাজীপুর শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের, শেখ হাসিনার ও আওয়ামীলীগের ঘাটি। আমরা সকলে মিলেমিশে দলের জন্য এক হয়ে কাজ করবো। যে কোন সমস্যা সমঝোতার মাধ্যমে সমাধান করা সম্ভব। উন্নয়নের স্বার্থে আমরা সবাই এক হয়ে যাই। অনুষ্ঠান শেষে শহিদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করা হয়।
১৯৫০ সালের ৯ নভেম্বর তিনি গাজীপুরের হায়দরাবাদ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। এই উপলক্ষে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার এমপি স্মৃতি পরিষদসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, কৃষক লীগসহ বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। গাজীপুর মহানগরীর হায়দরাবাদে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের পরিবারের পক্ষ থেকে কবর জিয়ারত, পুষ্পমাল্য অর্পণ, পবিত্র কুরআন তেলওয়াত, দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেছে। সোমাবর রাত ১২টা ১ মিনিটে টঙ্গী নতুন বাজারস্থ আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে গাজীপুর মহানগর যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচছাসেবক লীগ কেক কাটার মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শুরু করে। উল্লেখ্য, ২০০৪ সালের ৭ মে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ও জাতীয় শ্রমিক লীগের কার্যকরী সভাপতি পদে আসীন থাকাকালীন সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারে নিহত হয়েছেন শহীদ আহসানউল্লাহ মাস্টার। এ ঘটনার পরদিন তার ভাই মতিউর রহমান টঙ্গী থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। এ মামলায় ২০০৪ সালের ১০ জুলাই পুলিশ অভিযোগপত্র দায়ের করে। ঢাকার একটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল ২০০৫ সালের ১৬ এপ্রিল ২২ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড ও ৬ আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। খালাস দেওয়া হয় ২ আসামিকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *