ভূরুঙ্গামারীতে নদী খননের নামে বালু বিক্রি; প্রশাসনের অভিযানে দুটি ড্রেজার মেশিন জব্দ

ভূরুঙ্গামারী(কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে নিষিদ্ধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করায় দুটি ড্রেজার মেশিন জব্দ করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার সদর ইউনিয়নের বাগভান্ডার গ্রামের মাঠেরপাড় এলাকার ফুলকুমার নদী থেকে ড্রেজার দুটি জব্দ করেন সহকারী কমিশনার(ভুমি) মোঃ জাহাঙ্গীর আলম।
জানাগেছে, উপজেলার পাথরডুবি ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত ফুলকুমার নদীটি পুনঃ খননের জন্য দরপত্র আহবান করে পানি উন্নয়ন বোর্ড। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স নিয়তি নির্মাণ ট্রেডার্স নদীটি পুনঃ খননের কাজ পায়। নদী খনন করে দুই পাড় না বেঁধে সরকারী নিয়মকে বৃদ্ধাঙ্গলী দেখিয়ে নিষিদ্ধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করে তা অন্যত্র বিক্রি করে আসছে।
এতে করে তীরবর্তী প্রায় শতাধীক ঘর-বাড়ী হুমকির মুখে পড়ে। এলাকাবসী প্রশাসনকে বিষয়টি অবহিত করলে সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহাঙ্গীর আলম ফুলকুমার নদীতে অভিযান চালিয়ে দুটি ড্রেজার মেশিন জব্দ করে একটি সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এ কে এম মাহমুদুর রহমান রোজেনের জিম্মায় এবং অপরটি উপজেলা প্রশাসনের কার্যালয়ে নিয়ে আসেন। ্
এলাকাবাসীরা সুত্রে জানাগেছে, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের নিকট থেকে আব্দুস ছামাদ ও নুরুজ্জামান নামে দুই ব্যক্তি চুক্তি নিয়ে তারা নিয়মানুযায়ী ড্রেজিং না করে নিষিদ্ধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।
স্থানীয় বাসিন্দা আজিজুল হক(৫০)জানান, তিনি বাড়ীর আঙ্গিনা বালু দিয়ে ভরাট করতে ১৭ হাজার টাকা প্রদান করেছেন ড্রেজার মালিককে। অপরদিকে জয়নাল আবেদীন নামের আরেক ব্যক্তির পুকুর বালু দিয়ে ভরাট করার সময় প্রশাসন এই অভিযান পরিচালনা করে।
সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহাঙ্গীর আলম জানান,আজ থেকে নিষিদ্ধ ড্রেজার বন্ধে অভিযান শুরু করার কারনে ভ্রাম্যমান আদালতে জেল জরিমানা করা না হলেও পরবর্তী সময়ে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে এবং জড়িতদের বিরুদ্ধে জেল জরিমানাসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *