করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ সুপারের খোলা চিঠি

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

প্রিয় কুড়িগ্রাম নিবাসী, আসসালামু আলাইকুম।কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে আপনাদের প্রতি শুভকামনা।

আপনারা ইতোমধ্যে সকলেই অবগত হয়েছেন যে,চীনের উবেই প্রদেশ থেকে উদ্ভুত প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস ইউরোপ, আমেরিকা ও আরব বিশ্ব হয়ে অন্যান্য আরো ১৭৪ টি দেশের মতই আজ আমাদের প্রিয় বাংলাদেশে হানা দিয়েছে।সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা প্রায় এক লক্ষ বিশ হাজার এবং ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারীর সংখ্যা ৯ হাজারের অধিক।বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১৭ জন এবং আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ১ জন।উদ্ভুত পরিস্থিতিতে মহামারীর আকার ধারণ করা এই ভাইরাসকে রুখতে প্রয়োজন আমাদের সর্বোচ্চ সতর্কতা,সচেতনতা,ত্যাগ এবং সাহসী মানসিকতা।যার মাধ্যমেই সম্ভব করোনা ভাইরাসের প্রতিরোধ।

মনে রাখবেন,

ভীতি অপেক্ষা আপনার সতর্ক,সচেতন এবং সাহসী ভূমিকাই প্রতিরোধ করবে ভাইরাস করোনাকে।আপনি নিরাপদ হলেই নিরাপদ থাকবে আপনার পরিবার,নিরাপদ হবে প্রতিবেশি, নিরাপদ হবে সমগ্র দেশ।

তাই প্রিয় কুড়িগ্রামবাসীর প্রতি উদাত্ত আহবান,আমরা সকলেই যেন অত্যন্ত আন্তরিকতার সহিত সরকার কতৃক আরোপিত সকল বিধি-নিষেধ মেনে সরকারী সকল উদ্যোগকে স্বাগত জানাই,বাড়িয়ে দেই সরকারের প্রতি সকলের সহযোগীতার হাত।

উল্লেখ্য যে,বাংলাদেশ সরকার দেশের সকল সম্মানিত নাগরিকের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা প্রদানে বদ্ধপরিকর।করোনা প্রতিরোধে প্রস্তুত রয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে শুরু করে দেশের সকল সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান।তারই ধারাবাহিকতায় কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে আপনাদের সকলের জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি যে—

১.করোনা একটি সংক্রামক ভাইরাস,এই ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শ থেকে আপনিও সংক্রমিত হতে পারেন যেকোন সময়।

২.এই ভাইরাস শরীরে ১৪ দিন পর্যন্ত সুপ্ত অবস্থায় থাকতে পারে,অর্থাৎ ১৪ দিন পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার কোন লক্ষ্মণ যেমন,জ্বর,গলা ব্যাথা,মাথা ব্যথা এবং শ্বাসকষ্ট আপনার শরীরে প্রকাশিত নাও হতে পারে। তাই কোন অবস্থাতেই আমরা অন্য কারো সাথে হ্যান্ডশেক বা কোলাকুলি করবোনা।জনসমাগম এড়িয়ে চলে নিজেকে এবং অন্যকে নিরাপদ রাখব।

৩.সাবান অথবা জীবানু নিরোধক দিয়ে হাত পরিস্কার না করে কোন অবস্থাতেই চোক,নাক,মুখ স্পর্শ করবেন না।এই চোখ,নাক এবং মুখ দিয়েই শরীরে প্রবেশ করে করোনা ভাইরাস।

৪.প্রত্যেকেই অন্যজন থেকে নিরাপদ দূরত্ব অর্থাৎ কমপক্ষে ৩ ফুট দূরত্ব বজায় রেখে কথা বলবেন।আপনার হাঁচি,কাশি থেকে নিঃসৃত থুথু, লালা ও সর্দি থেকে সংক্রমিত হতে পারে করোনা ভাইরাস।

৫.বিদেশ ফেরত সকল প্রবাসী ভাই-বোনদের প্রতি সনির্বন্ধ অনুরোধ,আপনারা সকলে আপনাদের নিজ বাড়ীতে নির্দিষ্ট কক্ষে ১৪ দিন পর্যন্ত অবস্থান করবেন।কোন অবস্থাতেই পরিবারের অন্য সদস্যের সংস্পর্শে অথবা পাড়া-প্রতিবেশীদের সংস্পর্শে আসবেননা। হাট,বাজারে চলাফেরা সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ।এমতাবস্থায় কোন নিয়মের ব্যত্যয় হলে আপনার বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

৬.আপনার শরীরে যদি করোনা ভাইরাস আক্রান্তের কোন লক্ষ্মণ প্রকাশিত হয়,তাহলে আপনি সিভিল সার্জনের কার্যালয়/স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্র/অফিসার ইন চার্জ/স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করুন।আপনার সুচিকিৎসায় আমরা সংকল্পবদ্ধ।

৬.গুজবে কান না দিয়ে সঠিক তথ্যের জন্য থানা পুলিশ,জেলা পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তা নিন।গুজব প্রচারকারীর বিরুদ্ধে জেলা পুলিশ সদা সোচ্চার।আপনিও সোচ্চার হোন।প্রয়োজনে ৯৯৯ এ কল করুন।

৭.নিশিচতভাবেই সকল ধরনের প্রয়োজনীয় পণ্য,ওষুধপত্র ও খাদ্যের অবৈধ মজুদদারীর বিরুদ্ধে জেলা পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসনের শক্ত অবস্থান।সরকারী ভাবেই মজুদ রয়েছে পর্যাপ্ত পন্যদ্রব্য,ওষুধ ও খাদ্য সামগ্রী।অযথা বিভ্রান্ত বা চিন্তিত না হয়ে সচেতনতার সহিত করোনাকে মোকাবেলা করুন।

৮.জরুরী প্রয়োজন না হলে গণপরিবহন তথা বাস,ট্রেন,লেগুনা,লঞ্চ,ফেরী,অটোরিকশা ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।
৯.করোনা সম্মন্ধে জানুন এবং প্রতিরোধ গড়ে তুলুন।ধন্যবাদ।

প্রচারেঃ
জেলা পুলিশ , কুড়িগ্রাম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *