ভূরুঙ্গামারীর বাঁশজানী সীমান্তে মাদক পাচার বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন

ভুরুঙ্গামারী(কুড়িগ্রাম)সংবাদদাতাঃ
ভুরুঙ্গামারীর বাঁশজানী সীমান্তে মাদক পাচার এবং মাদক পাচারকারীদের হামলায় যুবক আহতের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার সীমান্ত ঘেষা বাঁশজানী বাজারে এলাকার সচেতন মহলের উদ্যোগে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা কোরবান আলী,বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জলিল,সচেতন মহলের কবির হোসেন,ওয়াহেদ আলী ও মাদক রাখতে নিষেধ করায় মাদক ব্যবসায়ীদের হামলার শিকার মোঃ ফরিদুল ইসলাম। বক্তারা বাঁশজানী সীমান্ত দিয়ে মাদক পাচার বন্ধের দাবী জানান। বক্তারা আরও বলেন গত বৃহস্পতিবার বাঁশজানী নাওডোর এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী  জবান আলীর পুত্র রশিদুল ইসলাম(২৫),আব্দুল জলিলের পুত্র মিঠু মিয়া(১৮),আলাউদ্দিনের পুত্র হাফিজুর রহমান ও মৃত আব্দুল করিমের পুত্র আল আমিন (১৮) বাঁশজানী সীমান্ত ৯৭৭ এর ৭এস পিলারের কাটাতারের বেড়া না থাকায় ভারত থেকে গাঁজা ও ফেন্সীডিল পাচারের সময় বিএসএফ‘র ধাওয়া খেয়ে ঐ মাদক দ্রব্য সাইফুর রহমানের পুত্র ফরিদুল ইসলামের বাড়ির পিছনে রেখে সটকে পড়ে। বিএসএফ চলে যাওয়ার পর ফরিদুল মাদক ব্যবসায়ীদের মাদক রাখতে নিষেধ করায় ঐ দিনই বাঁশজানী বাজারে যাওয়ার পথে অতর্কিত হামলা করে আহত করে। ফরিদুল ইসলাম উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি এবং ভুরুঙ্গামারী থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পরেরদিন ইন্সপেক্টর (তদন্ত) জাহিদুল ইসলাম ও এস আই আব্দুল আউয়াল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়নি। এলাকাবাসী জানায় বাঁশজানী দিয়ে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকার মাদক পাচারের সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রন করে ঐ রশিদুল ইসলাম। এলাকার কেউ প্রতিবাদ করলে মারপীটসহ বিভিন্নভাবে হয়রানী করে আসায় সাধারণ জনগন মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে। উল্লেখ্য ইতিপুর্বে জনৈক্য ইব্রাহীম নামে এক মাদক কারবারীকে ক্রসফায়ার দেওয়ার পর প্রায় বছর খানেক মাদক পাচার বন্ধ ছিল কিন্তু বর্তমান আবারও মাদক চক্রটি সক্রিয় হয়ে উঠেছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মাদক ব্যবসায়ী রশিদুলসহ ঘটনায় জড়িতরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *