মিটার প্রতি সরকারি মুল্যের দশগুণ বেশি টাকা নিচ্ছেন পবিস ঠিকাদার।

আতাউর রহমান বিপ্লব।।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় পরিচালিত গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর মাঝে শতভাগ পল্লী বিদ্যুৎ নিশ্চিত করার প্রকল্পের আওতায় কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলার চর ভুরুঙ্গামারী ইউনিয়নের আরজি পাইকডাঙ্গা এলাকায় মিটার প্রত্যাশীদের কাছ থেকে ঠিকাদারের লোকজনের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত টাকা নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলার গ্রামীণ জনপদ চর ভুরুঙ্গামারী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড আরজি পাইকডাঙ্গা গ্রামে পল্লীবিদ্যুৎ এর মিটার প্রত্যাশী ভুক্তভোগীরা জানান, ঠিকাদারের দালালেরা বিদ্যুতের মিটার প্রত্যাশী সকলের কাছ থেকে অবৈধভাবে ইচ্ছেমতো অতিরিক্ত টাকা তুলছেন।
অন্ধকার _আলোকিত হবে তাই প্রতিবাদহীন টাকা দিয়েছেন সকলে।। সরেজমিন গিয়ে টাকা নেয়া সহ নানান অভিযোগ পাওয়াগেছে। এছাড়াও একটি গোয়েন্দা সংস্থার তদন্তে কুড়িগ্রাম – লালমনিরহাট পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির ঠিকাদার ছাবেদ আলীর বিরুদ্ধে সরকারী মুল্যের চেয়ে দশগুণ বেশি টাকা নেয়ার অভিযোগের বিষয়টি সত্যতা নিশ্চিত হয়েছে।
এ ব্যাপারে কথা হয় চর ভুরুঙ্গামারী ইউনিয়নের আরজি পাইকডাঙ্গা (বহরকুড়ি)’র আলামত মুন্সির পুত্র মোঃ আব্দুস সালাম, বালামত শেখের পুত্র মফিদুল ইসলাম ও নজরুল ইসলামের পুত্র আলৃ মিয়ার। তারা সকলে জানান, ঠিকাদার মোঃ ছাবেদ আলী চর ভুরুঙ্গামারী ইউনিয়নের ৫০০ জন মিটার প্রত্যাশীর কাছ থেকে সাড়ে ৪ থেকে ৫ হাজার টাকা বিভিন্ন দালালের মাধ্যমে সংগ্রহ করছেন। অতিরিক্ত টাকা নেয়ার ক্ষেত্রে ঠিকাদার ছাবেদ আলীর স্থানীয় দালাল / সহযোগী আরজি পাইকডাঙ্গার মোঃ মঈনুল ও শুভ্র’র মিলে মিটার প্রত্যাশীদের নানান চাপ দিয়ে টাকা তুলছেন।
সিডিউল অনুযায়ী প্রতিটি মিটার বরাদ্দের ক্ষেত্রে সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ৫৬৫ টাকা নেয়ার কথা থাকলেও গ্রামীণ জনপদের এসব অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর কাছ থেকে প্রায় ১০ গুন বেশী টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। অতিরিক্ত টাকা নেয়ার কারনে জনবান্ধব সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে।

অতিরিক্ত টাকা আদায়ের ব্যাপারে অভিযুক্ত মঈনুল জানান, ইতিপূর্বে ঠিকাদারের অন্য লোকজন মিটার প্রতি ৫ হাজার টাকা নিয়েছে। আমরা তাদেরকে সরিয়ে দিয়ে স্থানীয় বাসিন্দা হিসেবে কাজটি করছি। তবে তিনি বিভিন্ন খরচের অজুহাতে জনপ্রতি ২৫০০ টাকা নেয়ার কথা স্বীকার করেন।

এ ব্যাপারে কুড়িগ্রাম – লালমনিরহাট পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার স্বদেশ কুমার ঘোষ জানান, বিষয়টি অবগত হয়েছি শীঘ্রই প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *