ধরলার ভাঙনে বিলীন হচ্ছে মেখলির চর খন্দকার পাড়া সপ্রাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিপাত ও উজানের ঢলে ধরলা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বিভিন্ন এলাকায় তীব্র আকার ধারণ করেছে নদী ভাঙন। এ বছরে ধরলা নদীর ভাঙ্গনে ফুলবাড়ী উপজেলার শতাধিক ঘরবাড়ি বিলীন হয়ে গিয়েছিল। অব্যাহত ভাঙনে বিলীনের পথে উপজেলার মেখলির চর খন্দকারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টিও। স্কুলের মালামাল সরিয়ে নিচ্ছেন শিক্ষকরা।

জানা যায়, ধরলা নদীর ভাঙ্গনে গত এক মাসে মেকলি গ্রামের ৪০ থেকে ৪৫ টি পরিবার গৃহহীন হয়েছে। এক সপ্তাহ ধরে ভাঙ্গন আবারও তীব্র আকার ধারন করলে স্কুলটির কাছে চলে আসে নদী। সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) স্কুলটির একাংশ নদী গর্ভে চলে গেছে।

মেখলির চর খন্দকারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সবুর আলী জানান, ১৯৯০ সালে স্কুলটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ৪ জন শিক্ষক ও প্রায় ১শ শিক্ষার্থী নিয়ে চর এলাকায় শিক্ষা বিস্তারে অবদান রাখছিলো স্কুলটি। ৪ রুম বিশিষ্ট স্কুলের ভবনটি নির্মিত হয় ২০০০ সালে। রবিবার থেকে নদীতে পানি বাড়ায় নদী গর্ভে চলে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে স্কুলের পাকা ভবনটির। উপজেলা শিক্ষা অফিসের পরামর্শে স্কুলের চেয়ার, বেঞ্চসহ অন্যান্য মালামাল সরিয়ে নেয়া হচ্ছে।

ভাঙনের শিকার স্থানীয় বাসিন্দা বাছের আলী ও আবদার আলী জানান, স্কুল ছাড়াও চর মেখলি জামে মসজিদও হুমকির মুখে। বর্তমানে তীব্র ভাঙনে প্রতিনিয়ত গৃহহীন হচ্ছে এই গ্রামের মানুষ।

উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার রাশেদুল ইসলাম মন্ডল জানান, সরেজমিন পরিদর্শন করে স্কুলের বর্তমান অবস্থা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *