শীতে কাপছে কুড়িগ্রাম

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধ ঃ
শীতে কাপঁছে কুড়িগ্রামের জনপদ। গতকাল রোবিবার কুড়িগ্রামের তাপমাত্রা ছিলো দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। আজকে সকাল ৯টায় জেলার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৮ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কুড়িগ্রামের রাজার হাট আবহাওয়া কৃষি পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের সিনিয়র পর্যবেক্ষক মোফাখ্খারুল ইসলাম জানান, মৃদু থেকে মাঝারী ধরনের শৈত্য প্রবাহ কুড়িগ্রামের উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যা তিব্র শৈত্যপ্রবাহ আকারে রুপ নেবে।
এদিকে ঘন কুয়াশা আর উত্তরের হিমেল হাওয়ায় কুড়িগ্রামের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। ক্রমাগত বাড়ছে তীব্র শীতের প্রকোপ। বৃষ্টির মতো ঝরছে শিশির। ঠান্ডায় চরম বিপাকে পড়েছে শ্রমজীবী ও ছিন্নমুল মানুষসহ পশুপাখি। ঘন কুয়াশা ও কনকনে ঠান্ডায় বিশেষ কাজ ছাড়া বাইরে বের হচ্ছে না অনেকেই।
গত তিনটি এবং চলমান একটি শৈত্য প্রবাহের প্রভাবে উত্তরের জেলা কুড়িগ্রামের ১৬টি নদনদীর প্রায় ৫শতাধিক চরাঞ্চলের মানুষ চরম দূর্ভোগে পড়েছে।এখানকার জীবনযাত্রা বিপর্যস্থ। ব্যাহত হয়ে পড়েছে মানুষের স্বাভাবিক কাজকর্ম।
তীব্র শীত ও অতিরিক্ত ঠান্ডায় কুড়িগ্রাম জেলার জেনারেল হাসপাতালসহ উপজেলার বিভিন্ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়াসহ শীতজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হচ্ছে রোগী। এদের বেশিরভাগ শিশু ও বৃদ্ধ।
শীতের প্রভাব পড়েছে কৃষিতে। চলতি বোরো মৌসুমের বীজতলা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে ঘন কুয়াশার কারনে। এছাড়া আলু এবং শবজির আবাদেও প্রভাব পড়েছে। কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গেছে জেলায় এবার বোরো বীজতলা রয়েছে ৫০৯৪ হেক্টর এবং আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১লাখ ১১হাজার হেক্টর।
জেলা ত্রাণ শাখা সূত্রে জানা গেছে, শীতার্ত মানুষের জন্য ৬১ হাজার ৫শ ১৪টি কম্বল উপজেলা পর্যায়ে বিতরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *