লালমনিরহাটের হারাটিতে সতী নদী থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন অর্ধ শতাধিক ফসলি জমি ধ্বসে যাওয়ার আশংখা  


 
লালমনিরহাট প্রতিনিধি \ লালমনিরহাটের হারাটি ইউনিয়নের মাষ্টার পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন সতী নদী থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে একটি প্রভাবশালী মহল। দীর্ঘদিন থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের ফলে নদীর পার্শ্ববর্তী এলাকার অর্ধ শতাধিক ফসলি জমি ধসে যাওয়ার আশংখা করছে জমির মালিকগণ। জানা গেছে, আদিতমারী উপজেলার সারপুকুর ইউনিয়নের সরলখঁা গ্রামের মৃত: মোস্তাক আহমেদ এর পুত্র হুমায়ন কবীর নামের এক ব্যক্তি দীর্ঘদিন থেকে সতী নদীতে ড্রেজার মেশিন লাগিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে। এই বালু বিভিন্ন ঠিকাদারের নিকট বিক্রি করে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করছে। সতী নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করলেও এলাকার কোন জমির মালিক ভয়ে প্রতিবাদ করতে সাহস পাচ্ছে না বলে অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও ৪০/৫০টি পরিবার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বলে এলাকাবাসী জানায়। দীর্ঘদিন থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন পুর্বক বিক্রি করে ওই টাকাসহ বিভিন্ন অবৈধভাবে উপার্জনকৃত টাকা দিয়ে উক্ত হুমায়ন বিলাশ বহুল ৩ তলা বিশিষ্ট একটি ভবন নির্মান করছে। এব্যাপারে লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, ঘটনাস্থলে কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছে। উক্ত কর্মকর্তা তদন্ত করে ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান। এবিষয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার উত্তম কুমার রায় জানান, সদর উপজেলায় প্রত্যেকটি ড্রেজার মেশিন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এর পরেও যদি কেউ অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এদিকে হারাটি ইউনিয়নের মাষ্টার পাড়া গ্রামের লোকজন জানান, প্রশাসন যাওয়ার পর কঠোর পাহাড়া দিয়ে এবং গভীর রাতে ড্রেজার মেশিন দিয়ে সতী নদী থেকে বালু উত্তোলন করছে উক্ত হুমায়ন কবীর। সরেজমিনে গেলে ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকগন উক্ত হুমায়ন কবীরের বিরুদ্ধে বক্তব্য দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। কারন হিসেবে জানা গেছে, উক্ত কবীর এতই দুধর্ষ যে, তার বিরুদ্ধে কোন ব্যক্তি কথা বললে সেই ব্যক্তিকে চরম নাজেহাল হতে হয়। উক্ত কবীরের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী, চঁাদাবাজি, খুন, মাদক ব্যবসাসহ অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে যা পরের সংখ্যায় প্রকাশ করা হবে।
 
 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *