রাজীবপুরে বিট পুলিশিং কার্যক্রম শুরু

সহিজল ইসলাম, রাজীবপুর(কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধি
পুলিশের সেবাকে আরও গতিশীল এবং জনগণের সঙ্গে সম্পৃক্ততা বাড়ানোর জন্য রাজীবপুর উপজেলায় বিট পুলিশিং কার্যক্রম শুরু হয়েছে।
এ জন্য উপজেলাকে দুটি (বিটে) ভাগ করা হয়েছে। প্রতি বিটের নেতৃত্বে থাকবেন একজন উপপরিদর্শক (এসআই)। তাঁর সঙ্গে একজন এএসআইসহ আরও দুই থেকে তিনজন কনস্টেবল কাজ করবেন। তাঁরা ওই এলাকার যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ (হালনাগাদ) করবেন। সেখানে কোনো অপরাধ ঘটলে এর তদন্ত এবং আসামি গ্রেপ্তারেও তাঁরা মুখ্য ভূমিকা রাখবেন।
আজ বৃহস্পতিবার রাজীবপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বিট পুলিশিং কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়।
রাজীবপুর থানা সূত্রে জানা গেছে,এলাকার জনসংখ্যা, থানার জনবল, অপরাধের মাত্রা ও টহলসুবিধার কথা বিবেচনা করে বিট ভাগ করা হয়েছে। ব্রিটিশ আমলেও পুলিশের টহল কার্যক্রম পরিচালনার জন্য শহর এলাকাকে কয়েকটি অংশে ভাগ করা হতো। বিটের দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যরা এলাকার একজন হিসেবে জনগণের কাতারে অবস্থান করে সেবা প্রদান করবেন। যেকোনো প্রয়োজনে জনগণ প্রথমেই তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করে সহায়তা নেবেন।
রাজীবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নবিউল হাসান বলেন, বিট পুলিশের সদস্যরা প্রথমে একটি নাগরিক পরিচিতি ফরম নিয়ে এলাকায় ঘরে ঘরে যাবেন। আবার সপ্তাহ খানেক পর পূরণ করা ফরমটি নিয়ে আসবেন। এই ফরমে নাগরিকদের ছবিসহ যাবতীয় তথ্য থাকবে। পরে তথ্যভান্ডার তৈরি করে ব্যক্তি শনাক্তকরণ, অপরাধ প্রতিরোধ ও প্রতিকারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া যাবে।
তিনি আরও বলেন, প্রতিটি বিট এলাকার জনগণকে নিয়ে নিয়মিত সভা করা হবে। সভায় স্থানীয় লোকজনের পরামর্শ গ্রহণ করা হবে। বিট পুলিশের সদস্যরা সংশ্লিষ্ট এলাকার মামলার তদন্ত, আসামি গ্রেপ্তার, পরোয়ানা তামিল, মাদক, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারসহ যাবতীয় কাজে মুখ্য ভূমিকা রাখবেন।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুল আলম বাদল। আরও উপস্থিত ছিলেন,রাজীবপুর থানার এসআই গোলক চন্দ্র দাস ,এএসআই নুর সাদেক, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুর রশীদ ও রাজীবপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যগণ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *