লাখাইছড়া চা বাগান থেকে কলেজ শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার:

শেখ মোহাম্মদ সাব্বির :
বিশেষ প্রতিনিধি মৌলভীবাজার।
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের লাখাইছড়া চা বাগান থেকে এক কলেজ শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার (৩০ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৬টায় লাখাইছড়া চা বাগানে মরদেহটি পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। এর আগে শনিবার বিকেলে ওই শিক্ষার্থী নিখোঁজ হন। কলেজ শিক্ষার্থীর নাম স্বাক্ষর দেব (১৮)। তিনি শ্রীমঙ্গল উপজেলার সদর ইউনিয়নের ইছবপুর এলাকার বাসিন্দা। তার বাবা কল্যান দেব উত্তর ভাড়াউড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। স্বাক্ষর শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী।শনিবার রাতে স্বাক্ষরের বাবা কল্যান দেব গণমাধ্যমকে জানান, শনিবার বিকেলে স্বাক্ষর দেব তার মাকে নিয়ে ডাক্তারের কাছে যাওয়ার কথা ছিল। সে বাসা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বের হয়। কিছুক্ষণ পর ৫টার দিকে তার মা তার ফোন নাম্বারে কল করলে অন্য একজন ফোন রিসিভি করে। স্বাক্ষর কোথায় বললে অপর পাশ থেকে ‘স্বাক্ষর কে? স্বাক্ষর নামে কেউ নাই’ বলে ফোন রেখে দেয়।’ এরপর থেকে তাকে আর ফোনে পাওয়া যায়নি।এদিকে পরিবারের লোকেরা স্বাক্ষরকে না পেয়ে পাড়া-প্রতিবেশীদের নিয়ে সারা রাত ধরে উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় খোজখবর করেন। রাত ১১টার দিকে স্বাক্ষরের বাবা বাদী হয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন শ্রীমঙ্গল থানায়। সন্ধ্যা ৭টার দিকে ও রাত সাড়ে ১১টার দিকে দুই বার তার ব্যবহৃত মুঠোফোন ট্র‍্যাকিং করা হয়। একবার তাকে ভানুগাছ রোডে ও অন্যবার ষাড়ের গজ এর দিকে দেখানো হয়। পুলিশ ও এলাকাবাসী তাকে তন্ন তন্ন করে খুঁজেছে ওই এলাকাগুলোতে।শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুছ ছালেক জানান, নিহত স্বাক্ষর দেব গতকাল শনিবার বিকেল হতে নিখোঁজ ছিলো। পুলিশসহ স্থানীয় লোকজন শনিবার বিকেল থেকে সারা রাত অনেক খোজাঁখোজি করার পরও তাকে পাওয়া যায়নি। আমরা রাতে অনেক চেষ্টা করেছি তাকে খুঁজে বের করার। রোববার ভোর সকালে লাখাইছড়া চা বাগানে শ্রমিকরা একটি মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে আমাদের ফোন দিলে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। এখন এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা সেটি বলা যাচ্ছে না। মৌলভীবাজার থেকে পিবিআই ও সিলেট থেকে সিআইডির স্পেশাল টিম ঘটনাটির আলামত সংগ্রহ করছে। আমরা ঘটনাটি তদন্ত করে দেখছি। রহস্য শীঘ্রই উন্মোচন হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *