mail.google.com

রাণীশংকৈল প্রতিনিধি

ঠাকুরগওয়ের রাণীশংকৈল বাঁশবাড়ি এলাকায় কুলিক নদীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের ফলে কেড়ে নিল সন্ধ্যারই গ্রামের দুই সহোদর নান্নু(১৩) ও নাহিদ (১১)’র তাজা প্রাণ। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০ টার সময় গরুকে গোসল করাতে নদীর ঘাটে যায় খলিল ও তার দুই ছেলে নান্নু(১৩) ও নাহিদ (১১)। একই গ্রামের বিশু মালদাইহ্যা ও মোঃ আবুলের ছেলে নাজির নদীর ঘাটে শ্যালো মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের ফলে তলদেশে গভীর গর্ত হওয়ায় পাড়ে ফাটল ধরে। হেঁটে যাওয়ার সময় পাড় ভেঙ্গে নদী গর্ভে পড়ে যায় নাহিদ। তাকে ধরতে গিয়ে বড় ভাই নান্নু ও পানির নিচে তলিয়ে যায়। ছেলেদের বাঁচাতে গিয়ে বাবা খলিল ও একই বিপদমুখি হয়। কোন রকমে নিজেকে বিপদ মুক্ত করতে পারলেও পারেননি মৃত্যুর হাত থেকে দুই ছেলেকে বাঁচাতে। চোখের সামনে দুই ছেলের পরপারে যাওয়ার ব্যাথায় ব্যাথাতুর চিত্তে চেয়ে রইলেন বাবা তিনি। শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেছেন রাণীশংকৈল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ তাজুল ইসলাম, প্রফেসার সফিকুল আলম, রাণীশংকৈল প্রেস ক্লাব সহ-সভাপতি মোঃ সেতাউর রহমানসহ এলাকাবাসী। এহেন মর্মান্তিক ঘটনায় অবৈধভাবে বালি উত্তোলনকারীদের সুবিচার’র জোর দাবী তুলেছেন এলাকাবাসী।

রাণীশংকৈল থানা অফিসার ইনচার্জ রেজাউল করিম এ ব্যাপারে নিশ্চিত করেছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।