কচাকাটার মাদারগঞ্জ থেকে নিখোঁজ ২ মাদ্রাসা শিক্ষার্থী নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলা থেকে উদ্ধার

কচাকাটা প্রতিনিধিঃ
কচাকাটা থানার বল্লভেরখাষ ইউনিয়নের ‘মাদারগঞ্জ দারুল কোরআন হাফিজিয়া মাদ্রাসার’ নিখোঁজ দুই শিক্ষার্থী ৪ দিন পর অবশেষে নিলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলা থেকে উদ্ধার হয়েছে।
বুধবার (১৬ মার্চ) দিনগত রাতে তাদেরকে পরিবারের সদস্যদের হাতে হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।এর আগে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ ও পরিবারের লোকজন দুই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে ফিরিয়ে আনেন।
মাদারগঞ্জ দারূল কোরআন হাফিজিয়া মাদ্রাসার পরিচালক হাফেজ মাওলানা মো. ইয়াকুব আলী জানান, হেফজ শাখার দুই শিক্ষার্থী মঞ্জুর আলম নাইম (১৪) ও রাকিবুল ইসলাম (১১) সম্প্রতি রাত জেগে মোবাইল ফোন ব্যবহার করায় পরদিন তাদের শাসন করা হয় এবং বিষয়টি তাদের বাবা-মাকে জানাতে চেয়েছিলাম।
এজন্য তাদের বাবা-মাকে খবর দিতে বলা হয়। পরদিন ১৩ মার্চ প্রতিদিনের মতো সকাল ১০ টায় সকালের তালিম শেষে তারা খাওয়া দাওয়ার পর বিশ্রামে যায়।পরে তারা সকলের অগোচরে নিজেদের কাপড় চোপড় ও আংশিক বেডিংপত্র নিয়ে মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে যায়। তাদের বাড়িতে খবর নিয়ে জানতে পারি সেখানেও তারা যায়নি। এতে আমরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন কচাকাটা থানায় একটি ডায়েরি করেন।
শিশু নাইমের চাচা সাহাবুল ইসলাম জানান, এরপর আমরা ফেসবুকে পোস্ট দেই। আত্মীয়-স্বজনের বাড়িসহ তাদের সব জায়গায় খুঁজতে থাকি। বুধবার হঠাৎ রংপুরের মমিনপুর থেকে জনৈক নুর আলম মোবাইলে জানান, রোববার শেষ বিকেলে দুই শিশু ইটভাটায় কাজ নিতে যায়। তাদেরকে দেখে মনে হয় তারা কাজে অভ্যস্ত নয়। তিনি তাদের বুঝিয়ে বাড়ি নিয়ে গিয়ে থাকতে দিয়ে আমাদের জানিয়েছেন। আমরা বিষয়টি মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষকে জানাই। পরে পরিবারের লোকজন ও মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ সেখানে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে নিয়ে আসি।

কচাকাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহেদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বাংলানিউজকে জানান, নিখোঁজের তিন দিন পর বুধবার রংপুরের মমিনপুর থেকে উদ্ধার হয়েছে দুই মাদ্রাসা ছাত্র। ওই দুই শিক্ষার্থী মাদ্রাসায় দুষ্টুমি করায় তাদের বিচার করা হবে, এই শাস্তির ভয়ে মাদ্রাসা থেকে আত্মগোপন করে নীলফামারীতে চলে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.