কুড়িগ্রামের রাজারহাটে এক নির্বাচনের তিন রকম ফলাফল নিয়ে সংবাদ সম্মেলন

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামের রাজারহাটের বিদ্যানন্দ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ফলাফল সীট ঘষামাজা করে নৌকা প্রার্থীকে বিজয়ী করার অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেছেন প্রথম ফলাফলে বিজয়ী আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রাথী আলমগীর হোসেন।
মঙ্গলবার (২৯শে মার্চ) দুপুরে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন তিনি ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করেন,গত বছরের ২৬ডিসেম্বর বিদ্যানন্দ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ফলাফলে উক্ত ইউনিয়নের তৈয়বখাঁ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ভোট গণনা করে কর্তব্যরত প্রিজিাংর্ডিং অফিসার ও রাজারহাট মহিলা ডিগ্রি কলেজের সহকারি অধ্যাপক রাশেদুল ইসলাম প্রার্থীদেরকে ফলাফল সীট প্রদান করেন। ফলাফল সীটে ওই কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী তাইজুল ইসলাম ১৭৫ ভোট এবং আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আলমগীর হোসেন ৩১০ভোট প্রাপ্ত হন। পরে ওই রাতে রাজারহাট উপজেলা রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নজরুল ইসলামের নিকট ফলাফল জমার পূর্বে প্রিজাইর্ডিং অফিষার ফলাফল সীট ঘষামাজা করে নৌকার প্রার্থী তাইজুল ইসলামের ১ভোট বাড়িয়ে ১৭৬ভোট লিখে জমা প্রদান করেন। এতে করে ওই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ফলাফল ৫১৬৬ভোটে ড্র হয়ে যায়। এনিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী আলমগীর হোসেন হাইকোর্টে একটি রিট পিটিশন দাখিল করেন যা বিচারাধীন রয়েছে বলে জানান। এছাড়া তিনি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের নিকট অভিযোগ করায় তার নির্দেশে রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জি এম সাহাতাব হোসেন তদন্ত করে ফলাফলে নিয়ে অনিয়ম ও প্রিজাইডিং অফিসারের কর্তব্যে অবহেলার সত্যতা স্বীকার করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এরপ্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে গত ২৭মার্চ উক্ত কেন্দ্রের ভোট পূণঃগননার আয়োজন করেন রিটার্নিং অফিসার নজরুল ইসলাম। অসুস্থ্যতার কারনে বিদ্রোহী প্রার্থী আলমগীর হোসেন সময়ের প্রার্থনা করলেও সময় না দিয়েই তার অনুপস্থিতিতে রিটার্নিং অফিসার পূণঃভোট গণনার ফলাফলে আবারও মোটর সাইকেল প্রতীকের ২টি ভোট কমিয়ে দিয়ে ৩০৮ভোট দেখিয়ে নতুন ফলাফল সীট অনুযায়ী নৌকা প্রতীকের প্রার্থী তাইজুল ইসলামকে বিজয়ী ঘোষনা করেন বলে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়। তিনি প্রথম ফলাফল সীট বহাল রাখার দাবী জানান এবং নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশে অনিয়মে জড়িত রিটার্নিং অফিসার ও প্রিজাইর্ডিং অফিসারের বিচার দাবী করেন।
প্রিজাইডিং অফিসার রাশেদুল ইসলাম জানান,প্রথমে ভূল বশতঃ ফলাফল সীটে নৌকা প্রতীকের ১ভোট কম হয়েছিল পরে সংশোধন করে ১৭৬ভোট করে দিয়েছি। পূণঃগননায় বিদ্রোহী প্রার্থীর মোটর সাইকেল প্রতীকে সিল না দিয়ে টিপ সহি দেয়া ২টি ভোট বাতিল হওয়ায় তার ভোট কমেছে বলে জানান।

এবিষয়ে জানতে চাইলে রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান,যা হয়েছে নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী করা হয়েছে। আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার তদন্ত প্রতিবেদনে অনিয়মের প্রমান পেয়েছেন বলে উল্লেখ করেছেন,এবিষয়ে জানতে চাইলে তার কিছু জানা নেই বলে কথা বলতে অস্বীকৃতি জানান ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরে তাসনিম বলেন,ভোটের ফলাফল সীট ভিন্ন রকম হওয়ার বিষয়ে প্রিজাইর্ডিং অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার বলতে পারবেন। নির্বাচনী আইন-শৃঙ্খলার বিষয়টি আমি দেখেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.