কোটি টাকা ইজারার পাকেরহাটে রাস্তার ধারে ময়লার ভাগাড়, দূর্গন্ধে অতিষ্ঠ জনজীবন

এস.এম.রকি, খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ
নির্দিষ্ট কোন ময়লার ভাগাড় না থাকায় রাস্তার ধারের ময়লার ভাগাড়ের দূর্গন্ধে চরম ভোগান্তি নিয়েই দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার প্রধান বানিজ্যিক কেন্দ্র পাকেরহাট বাইপাস রাস্তা ও গরুহাটি যাওয়ার সড়কের পাশে বসবাস করছে বাসিন্দারা ও চলাচল করে পথচারীরা। দীর্ঘদিন দূর্গন্ধ নিয়েই ওখানে বসবাসকারীরা বাসিন্দারা স্বাস্থ্য নিয়ে রয়েছেন চরম ঝুঁকিতে।

জানা যায়, প্রায় কোটি টাকা মূল্যে ইজারা হওয়া পাকেরহাটের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা খাতে যে ব্যয় হওয়ার কথা তা করা হয় না।

রবিবার দুপুরে সরেজমিনে দেখা যায়, গ্রামীণ শহর পাকেরহাটের ব্রয়লার মাংস ব্যবসায়ীরা দীর্ঘদিন থেকেই বাইপাস সড়কের ধারে ও ইমারত নির্মাণ শ্রমিকের পাশের খোলা স্থানে ব্রয়লার মুরগির পাখনা, বিষ্ঠা ও উচ্ছিষ্ট ফেলে ময়লার ভাগাড়ে পরিণত করেছে। তার সাথে বাজারের বিভিন্ন দোকানের ময়লা, বাড়ির আবর্জনা,পচাঁ বাসি খাবারের উচ্ছিষ্ট মিলে তৈরী হয়েছে ময়লা-আবর্জনার বিশাল স্তূপ। এই স্তূপের পাশ দিয়ে দূর্গন্ধময় পরিবেশে চলাচল করছে পথচারী ও শিক্ষার্থীরা। তবে সবচেয়ে বেকায়দায় ওখানকার বাসিন্দারা। তারা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বসবাস করছে। এর সাথে পাকেরহাট গরুহাটি থেকে ছাগলহাটি যাওয়ার রাস্তাও ময়লার ভাগাড়। এই সড়কেও দূর্গন্ধ আর ভোগান্তি নিয়েই চলছে চলাচল।

এবিষয়ে কয়েকজন ব্রয়লার মুরগী বিক্রেতার সাথে কথা বলতে চাইলে তারা এড়িয়ে যান।

পথচারীদের দেখা যায়, নাকে রুমাল দিয়ে চলাচল করছে। কেউ কেউ হাত দিয়ে নাকমুখ চেপে ধরে চলাচল করছে। পচা ময়লা আবর্জনার দুর্গন্ধ বাতাসের সঙ্গে মিশে আশপাশের পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। ফলে প্রতিদিনই এলাকাবাসী, পথচারী, শিক্ষার্থী, চাকরিজীবী, ব্যবসায়ীসহ হাজার হাজার মানুষ অবর্ণনীয় ভোগান্তিতে পড়ছে।

স্থানীয় বাসিন্দা পুজা দাস বলেন, এই ময়লার স্তূপ নিয়ে অনেক আবেদন ও অনুরোধের পরেও কেউ কোনো সুরাহা করেনি। ফলে দূর্গন্ধ আর ভোগান্তি নিয়েই বাস করছি।

ওই রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত চলাচলকারী আশরাফুল রিফাত নামের এক যুবক বলেন, প্রতি বছর কোটি টাকার বেশী দিয়ে এই বাজারটি ইজারা দেওয়া হয়৷ কিন্তু এই ময়লার ভাগাড়ের জন্য এই এলাকার সুন্দর পরিবেশটাই নষ্ট হয়ে গেছে। পথচারীদের সাথে অনেকেই এই রাস্তা দিয়ে অবসর সময়ে চলাচল করে কিন্তু রাস্তার ধারের ময়লা আবর্জনার স্তূপ আর দুর্গন্ধে মনটাই খারাপ হয়ে যায়। দ্রুত এই সমস্যা সমাধানের জন্য সংশ্লিষ্ট মহলের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

বিষয়টির জন্য দুঃখ প্রকাশ করে আংগারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ও পাকেরহাট হাট কমিটির সভাপতি গোলাম মোস্তফা আহমেদ শাহ বলেন, জনগণের ভোগান্তি লাঘবে দ্রুত সময়ে ময়লার স্তূপ সরানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.