mail.google

চিরিরবন্দর(দিনাজপুর) প্রতিনিধি:

চিরিরবন্দর সুফ্ফা রেসিডেন্সেয়াল স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে জেলা শিক্ষা অফিসসহ বিভিন্ন দপ্তরে অনিয়ম ও ছাত্রছাত্রীদের উপর নির্যাতনের অভিযোগ করায় ওই স্কুলের এসএসসি পরীক্ষার্থী মোছাঃ আল মুরসালিনাকে (ঝুমু) নামে এক ছাত্রীকে স্কুল থেকে বহিষ্কারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফলে ২০১৭ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে মেধাবী ওই ছাত্রীর। বর্তমানে চরম অনিশ্চিয়তা ভুগছে ওই ছাত্রী ও তার অভিভাবক।

চিরিরবন্দর সুফ্ফা রেসিডেন্সেয়াল স্কুলের এসএসসি পরীক্ষার্থী মোছাঃ আল মুরসালিনা (ঝুমু) ও সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী মোছাঃ আল মুস্তুরা (মুমু) দীর্ঘদিন ধরে ওই স্কুলে পড়াশুনা করে আসছিল। কিন্তু স্কুলের মালিক মো. সোহরাওয়ার্দী ও তার স্ত্রী জোসনা পারভীন জুসির বিরুদ্ধে ছাত্রছাত্রীদের উপর নির্যাতন ও স্কুলে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ পাওয়ায় ওই দুই শিক্ষার্থীর অভিভাবক মো. আবুল হোসেন সরকার জেলা শিক্ষা অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। যার অনুলিপি তিনি শিক্ষা সচিব, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ বিভিন্ন দপ্তরে প্রেরণ করেন।

স্কুল মালিক ও তার স্ত্রীর স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের উপর নির্যাতন ও অনিয়মের খবর কয়েকটি স্থানীয় পত্রিকায় ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত হয়। এতে ক্ষব্ধ হয়ে সুফ্ফা স্কুলের মালিক মো. সোহরাওয়ার্দী এসএসসি পরীক্ষার্থী ঝুমুকে স্কুল থেকে বের করে দেন। বর্তমানে ওই ছাত্রী ও তার অভিভাবক দুঃচিন্তায় পড়েছেন। পরীক্ষা দিতে না পারলে মানসিক সমস্যা হবে বলে জানিয়েছেন তার অভিভাবক।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে এবং ঝুমু যাতে ২০১৭ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহনের সুযোগ পায় তার ব্যবস্থা করতে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড, জেলা শিক্ষা অফিসসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ঝুমুর অভিভাবক মো. আবুল হোসেন সরকার।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।