ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ॥ ঠাকুরগাঁওয়ের রুহিয়ায় ছোটভাইকে খুঁজতে গিয়ে এক কিশোরী গণধর্ষনের শিকার হয়েছে।একই গ্রামের ৩ যুবক তাকে মুখ চেপে ধরে পাশর্^বর্তী ভুট্রাক্ষেতে নিয়ে গিয়ে পালাক্রমে ধর্ষন করে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ করা হলেও পুলিশ রহস্যজনক কারণে মামলা নিচ্ছেনা বলে অভিযোগ উঠেছে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে,রুহিয়া থানার মধুপুর গ্রামের দিনমজুরের কন্যা (১৪) গত ২৮ মে (শনিবার ) সন্ধায় তার ছোট ভাইকে খুঁজছিল।সে তার ভাইকে খুঁজতে খুঁজতে বাড়ির সামনের বাঁশের খাড়ার কাছে যায়। ওইসময় সেখানে অবস্থানরত এনামুল হকের পুত্র ইদু পেছন দিক থেকে মেয়েটির মুখ চেপে ধরে এবং তৈয়ব আলীর ছেলে জুয়েল এবং ওসমান আলীর ছেলে শাহীন ওরফে পেল্কু তাকে টেনে হিচড়ে পাশের ভুট্রাক্ষেতে নিয়ে যায় এবং ওই ৩ বখাটে যুবক তাকে পালাক্রমে ধর্ষন করে।বাড়ি ফিরে মেয়েটি তার অভিভাবকদের জানালে গ্রাম্য মাতব্বর আজিজুল ইসলাম সহ কয়েকজন শালিস মিমাংসার মাধ্যমে বিষয়টি সামাজিকভাবে আপোষ মীমাংসার মাধ্যমে নিস্পত্তির আশ^াস দিয়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চালায়।এদিকে শালিসের নামে কয়েকদিন সময় ক্ষেপনের পরও বিচার শালিস না হওয়ায় ধর্ষিতার পিতা গত রোববার সন্ধায় রুহিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করে। কিন্তু থানার ওসি রহস্যজনক কারণে মামলাটি গ্রহনে টালবাহানা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ব্যাপারে রুহিয়া থানার ওসি খান মোঃ শাহারিয়ার জানান,মেয়ের পিতামাতা থানায় অভিযোগ নিয়ে এলেও দরখাস্তে গণধর্ষন বা ধর্ষনের কোন বর্ননা ছিল না।তাই তাৎক্ষনিকভাবে মেয়ের ডাক্তারী পরীক্ষা করা সম্ভব হয়নি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।