শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৮:৪৩ অপরাহ্ন
Logo
শিরোনাম :
‘দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেতু’ ও টোল কমানোর দাবি সেভ দ্য রোড-এর বিরামপুরে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে শিক্ষার্থীদের সহপাঠক্রম ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা সম্পন্ন ‘দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেতু’ ও টোল কমানোর দাবি সেভ দ্য রোড-এর রংপুর বিভাগে শ্রেষ্ঠ এসিল্যান্ড হলেন নাগেশ্বরীর উজ্জ্বল হোসেন নাগেশ্বরীতে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সমাবেশ অনুষ্ঠিত ঝালকাঠি মদিনা সরিষার তেলের কোম্পানির প্রতিনিধিকে ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড রাজশাহীর বাটার মোড়কে ‘জয় বাংলা চত্বর’ ঘোষণা করলেন মেয়র লিটন ইন্টারন্যাশনাল জুরিস্ট ইউনিয়নের আমন্ত্রণে এবি পার্টির নেতৃবৃন্দের তুরস্ক যাত্রা। স্কুলের তিন ক্ষুদে শিক্ষার্থী নিহত,আহত ৮ দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলের দুর্যোগ ঝুঁকি মোকাবেলায় জাতীয় বাজেটে বিশেষ বরাদ্দের দাবী
বিজ্ঞাপন :
আপনি কি ওয়েবসাইট তৈরীর কথা ভাবছেন? আপনার নিজস্ব একটি নিউজ সাইট দরকার? অথবা আপনার ব্যবসার প্রসারের জন্য সুন্দর একটি ওয়েবসাইট তৈরী করতে চান? দেরি না করে, এখনি যোগাযোগ করুন ০১৭১৭০৯৭৪৯৭ | ইমেইলঃ: nuraminlebu@gmail.com

নাগেশ্বরীতে বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ’র বৃক্ষ রোপনের নামে লক্ষ লক্ষ টাকা দূর্নীতি

এশিয়ান বাংলা ডেস্ক / ২০ জন দেখেছেন
আপডেট : বুধবার, ৩০ মার্চ, ২০২২

নাগেশ্বরী প্রতিনিধি ঃ
কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের আওতায় খননকৃত খালের দুইপাড়ে বৃক্ষরোপ প্রকল্পে ছয়নয়ের অভিযোগ উঠেছে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে। প্রতিটি গাছের চারার চড়া মূল্য, পিয়নের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে দেয়া হয়েছে চারা রোপনের কাজ এবং নির্ধারিত পরিমান চারা রোপন না করলেও ঠিকাদারকে বিল প্রদানের অভিযোগ উঠেছে নাগেশ্বরীর দপ্তরটির বিরুদ্ধে।
নাগেশ্বরীরর বোয়ালের ডারা থেকে বেরুবাড়ী ¯øুইসগেট পর্যন্ত বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন প্রকল্পের খননকৃত খালের দুই পাড়ে ২০২১ -২২অর্থবছরে ইআইআর প্রকল্পের আওতায় ৫ কিলোমিটার এলাকায় ১৮ লাখ টাকা ব্যায়ে ২২হাজার ৫০০ বনজ ও ফলজ বৃক্ষ রোপন করা হয়। এসব বৃক্ষের মধ্যে ২০হাজার বনজ ও ২হাজার ৫০০টি ফলজ। বনজ বৃক্ষের মধ্যে রয়েছে মেহগনি, আকাশমনি, শিমুল, কৃষ্ণচুড়া, জারুল, হরিতকি, বহেড়া, অর্জুন, আমলকি, দেশিনিম। অপরদিকে ফলজের মধ্যে রয়েছে আম (কলম), জাম, গোলাপজাম,জামরুল,পেয়ারাও বাতাবি লেবু।
তিন ফুট উচ্চতার প্রতিটি বনজ চারার দাম ধরা হয়েছে ৬০ টাকা এবং পাঁচ ফুট উচ্চতার প্রতিটি ফলজ বৃক্ষের চারার দাম ধরা হয়েছে ২৫০ টাকা। এ মোতাবেক মেহগনি গাছের চারার দাম পড়েছে ৬০ টাকা যা স্থানীয় বাজারে দাম মাত্র ৫টাকা। অপরদিকে একটি দেশি প্রজাতির কালো জাম গাছের চারার দাম ধরা হয়েছে ২৫০টাকা যার স্থানীয় বাজারে দাম মাত্র ১০টাকা।
এসব বৃক্ষরোপনের কাজ দুটি পায় দুজন ঠিকাদার। একজন রাজশাহীর ঠিকাদার তসলিম অপরটি খোদ নাগেশ্বরী বরেন্দ্র অফিসের পিয়ন এরশাদুল হক।
প্রকল্পের শুরুর স্থান বোয়ালেরডারা ০০ মিটার থেকে ১৫০০ মিটার পর্যন্ত (১.৫কিমি) ১০হাজার বনজ বৃক্ষ রোপনের কাজ পায় নাগেশ্বরী বরেন্দ্র অফিসের মাষ্টার রোলে কর্মরত পিয়ন এরশাদুল হকের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ইশা ইন্টারপ্রাইজ। ১৫০০ মিটার থেকে ৪০০০মিটার পর্যন্ত (২.৫ কিমি) ২হাজার ৫০০টি ফলজ বৃক্ষ ও ৪০০০মিটার থেকে ৬০০০মিটার পর্যন্ত (২কিমি) ১০হাজার বনজ বৃক্ষ রোপনের কাজ পান রাজশাহীর ঠিকাদার তসলিম। দরপত্রের শর্ত মোতাবেক ২০২১ সালের ১৫ আগষ্টের মধ্যে বৃক্ষরোপন শেষ করতে হবে এবং ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত রোপনকৃত চারার রক্ষানাবেক্ষন করতে হবে এবং চারার পরিমান,দর ও জাত উল্লেখ করে সাইনবোর্ড টানাতে হবে ঠিকাদার বা ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,এশা ইন্টার প্রাইজ তার কাজের এলাকা ১.৫কিমি এলাকা জুড়ে ১হাজারের মতো চারা রোপন করেছে। এর মধ্যে বেশীরভাগ গাছের চারা মরে শুকিয়ে গেছে। অপরদিকে ঠিকাদার তসলিমের প্রথম ২.৫কিমি এলাকায় ২হাজার ৫০০টি ফলজ বৃক্ষ এবং পরবর্তি ২কিমি এলাকায় ১০হাজার বনজ বৃক্ষের চারা রোপনের কথা থাকলেও গড়ে কিছু মেহগনি ও আকাশমনি জাতের বনজ বৃক্ষের চারা রোপন করেছেন। সব মিলিয়ে ২হাজারের বেশী হবে না। এগুলোর বেশীরভাগ গাছ মরে গেছে। অপরদিকে ফলজ বলতে দু,একটি জাম ছাড়া অন্য কোন ফলজ বৃক্ষের অস্তিত্ব মেলেনি প্রকল্প এলাকা জুড়ে।
বেরুবাড়ী সরকারপাড়া গ্রামের মোকাদ্দেস, আহসান আলী, দারাজ উদ্দিন বলেন, এখানে গত বছর বন্যার আগে কয়েকজনকে কিছু গাছের চারা লাগাতে দেখেছি। তারপর আর কাউকে দেখিনি। সারা এলাকা জুড়ে মেহগুনি আর দুই একটা আকাশমনি ছাড়া ছাড়া অন্য গাছের চারা নেই। তার বেশীরভাগ চারা মরে গেছে। যেগুলো আছে সেগুলোও হবে না। মিরার ভিটা এলাকার আলামিন,আকবর আলী জানান, এখানে ১শ থেকে দেড়শ জাম গাছ ছাড়া অন্য কোন ফলের গাছ লাগানো হয় নাই। যেগুলো লাগিয়েছিলো সেগুলোও গরু ছাগলে খেয়ে নষ্ট করেছে।
নাগেশ্বরী বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের উপসহকারী প্রকৌশলী খাইরুল বাশার বলেন, রোপনকৃত গাছের কিছু অংশ বিভিন্ন উপায়ে নষ্ট হয়েছে। ঠিকাদার এসব গাছ চলতি বছর জুনের মধ্যে পুনরায় রোপন না করলে বিল দেয়া হবে না। রোপনকৃত গাছের পরিমান নিরক্ষণ শেষে বিল নির্ধাণ করে প্রথম ধাপের বিল পরিশোধের কথা অস্বীকার করেন তিনি।
তবে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, ২৭ জানুয়ারী রোপনকৃত গাছের জরিপ করে বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। জরিপে ইশা এন্টারপ্রাইজ’র রোপনকৃত ১০হাজার গাছের মধ্যে ৭০৯০টি জীবিত দেখানো হয়। ৭০৯০টি গাছের বিপরীতে মোট ৪২৫৪০০ টাকা বিল ধরা হয়। শতকরা ৫ভাগ কমে প্রথম ধাপে (মোট বিলের অর্ধেক) চলতি বিল ২লাখ ২০হাজার ৬৫টাকা পরিশোধ করে বরেন্দ্র কর্তৃপক্ষ। অপর দিকে ঠিকাদার তসলিমের ১০হাজার বনজের মধ্যে জীবিত ৭১৩১টির বিপরিতে মোট বিল ৪২৭৮৬০টাকা ও ফলজ ২হাজার ৫০০মধ্যে জীবিত ১৭৮৩টির বিপরিতে মোট বিল ৪৪৫৭৫০টাকা ধরা হয়। তার মধ্যে চলতি বিল (মোটবিলের অর্ধেক) যথাক্রমে ২১৩৯৩০টাকা ও ২২২৮৭৫টাকা পরিশোধ করে কর্র্তৃপক্ষ।ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ইশা এন্টার প্রাইজের মালিক কাম নাগেশ্বরী বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ অফিসের পিয়ন এরশাদুল হক প্রথম বিল পাওয়ার কথা স্বীকার করে জানান, তিনি নিজে গাছ রোপন করেনি। উভয় ঠিকাদার কুড়িগ্রামের একজন নার্সারী মালিককে গাছ রোপনের দায়িত্ব দিয়েছেন। কি পরিমান গাছ রোপন করা হয়েছে তিনি সেটা জানেন না।
নাগেশ্বরী বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলী আলমগীর কবির এ বিষয়ে কোন প্রকার মন্তব্য করতে রাজি হননি। নাগেশ্বরী বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের উপসহকারী প্রকৌশলী খাইরুল বাশার উক্ত দুনীর্তির সঙ্গে সরাসরি জড়িত বলে মন্তব্য করেছেন একাধিক সুত্র।

Oceantechbd Agency

Oceantechbd agency promotional ads.


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

এজাতীয় খবর
আক্রান্ত

১,৯৫৩,১৮৮

সুস্থ

১,৯০০,৫৭৫

মৃত্যু

২৯,১২৭

  • জেলা সমূহের তথ্য
  • ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২,৭১৪
  • বরগুনা ১,০০৮
  • বগুড়া ৯,২৪০
  • চুয়াডাঙ্গা ১,৬১৯
  • ঢাকা ১৫০,৬২৯
  • দিনাজপুর ৪,২৯৫
  • ফেনী ২,১৮০
  • গাইবান্ধা ১,৪০৩
  • গাজীপুর ৬,৬৯৪
  • হবিগঞ্জ ১,৯৩৪
  • যশোর ৪,৫৪২
  • ঝালকাঠি ৮০৪
  • ঝিনাইদহ ২,২৪৫
  • জয়পুরহাট ১,২৫০
  • কুষ্টিয়া ৩,৭০৭
  • লক্ষ্মীপুর ২,২৮৩
  • মাদারিপুর ১,৫৯৯
  • মাগুরা ১,০৩২
  • মানিকগঞ্জ ১,৭১৩
  • মেহেরপুর ৭৩৯
  • মুন্সিগঞ্জ ৪,২৫১
  • নওগাঁ ১,৪৯৯
  • নারায়ণগঞ্জ ৮,২৯০
  • নরসিংদী ২,৭০১
  • নাটোর ১,১৬২
  • চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৮১১
  • নীলফামারী ১,২৮০
  • পঞ্চগড় ৭৫৩
  • রাজবাড়ী ৩,৩৫২
  • রাঙামাটি ১,০৯৮
  • রংপুর ৩,৮০৩
  • শরিয়তপুর ১,৮৫৪
  • শেরপুর ৫৪২
  • সিরাজগঞ্জ ২,৪৮৯
  • সিলেট ৮,৮৩৭
  • বান্দরবান ৮৭১
  • কুমিল্লা ৮,৮০৩
  • নেত্রকোণা ৮১৭
  • ঠাকুরগাঁও ১,৪৪২
  • বাগেরহাট ১,০৩২
  • কিশোরগঞ্জ ৩,৩৪১
  • বরিশাল ৪,৫৭১
  • চট্টগ্রাম ২৮,১১২
  • ভোলা ৯২৬
  • চাঁদপুর ২,৬০০
  • কক্সবাজার ৫,৬০৮
  • ফরিদপুর ৭,৯৮১
  • গোপালগঞ্জ ২,৯২৯
  • জামালপুর ১,৭৫৩
  • খাগড়াছড়ি ৭৭৩
  • খুলনা ৭,০২৭
  • নড়াইল ১,৫১১
  • কুড়িগ্রাম ৯৮৭
  • মৌলভীবাজার ১,৮৫৪
  • লালমনিরহাট ৯৪২
  • ময়মনসিংহ ৪,২৭৮
  • নোয়াখালী ৫,৪৫৫
  • পাবনা ১,৫৪৪
  • টাঙ্গাইল ৩,৬০১
  • পটুয়াখালী ১,৬৬০
  • পিরোজপুর ১,১৪৪
  • সাতক্ষীরা ১,১৪৭
  • সুনামগঞ্জ ২,৪৯৫
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর | স্পন্সর - একতা হোস্ট

ডাউনলোড করুন টাকা আয়ের মোবাইল এ্যাপ

download

বিশ্বে করোনা ভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১,৯৫৩,১৮৮
সুস্থ
১,৯০০,৫৭৫
মৃত্যু
২৯,১২৭
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
৫২২,৪২২,৩০৫
সুস্থ
মৃত্যু
৬,২৬৮,৪৪০
ডিজাইন ও ডেভলপ করেছেন নুর আমিন লেবু