ইশরাত জাহান চৌধুরী, মৌলভীবাজার :: মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলায় স্বামীকে গাছে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে পিটিয়ে জখম ঘটনায় প্রতিপক্ষের পাল্টা মামলায় পুলিশ নির্যাতিতার স্বামীকে গ্রেফতার করেছে। গত ৩০ আগষ্ট শনিবার রাত ৮টায় পতনউষার ইউনিয়নের শ্রীসূর্য্য নোয়াগাঁও গ্রামে পূর্ববিরোধের জের ধরে নাসিমা বেগমের বাড়িতে এসে সংঘবদ্ধ দল নিয়ে সুমন মিয়া হামলা চালিয়ে তাকে পিটিয়ে জখম করেছিল। এ ঘটনায় পুলিশ উভয়পক্ষের মামলা গ্রহণ করে। পুলিশের কাছে গ্রেফতার হওয়া নির্যাতিতা গৃহবধূ নাসিমার স্বামী আব্দুল আহাদ ভূঁইয়া সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, গত ৩০ আগষ্ট রাত ৮টায় একই গ্রামের সুমন মিয়া সংঘবদ্ধ দল নিয়ে এসে তার স্ত্রীকে ঘর থেকে টেনে হিছড়ে বের করে। তার স্ত্রীর আত্মচিৎকারে তিনি সাহায্যে এগিয়ে আসলে নির্যাতনকারীরা তাকে একটি গাছের গোড়ায় বেঁধে রেখে তার সামনেই স্ত্রীর কাপড় ছোপড় ছিড়ে বেদড়ক পিটিয়ে যখম করে। এ ঘটনায় রাতেই আহতাবস্থায় তার স্ত্রী নাসিমা বাদী হয়ে সুমন মিয়াসহ চারজনের নাম উল্লেখ করে কমলগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ করেছিলেন। থানা কর্তৃপক্ষ ঘটনার তিনদিন পর ৩ আগষ্ট রাতে আগে নির্যাতনকারী ও নির্যাতিতা উভয়পক্ষের মামলা গ্রহন করেন। আজ ৬ আগষ্ট শনিবার বিকালে মৌলভীবাজারের সহকারী পুলিশ সুপার তদন্তে আসছেন তাই স্বাক্ষী নিয়ে বাড়িতে থাকার কথা জানিয়ে শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক আবু সায়েম মো: আব্দুর রহমান পাল্টা মামলায় নির্যাতিতের স্বামী আব্দুল আহাদকে গ্রেফতার করেন। উপ-পরিদর্শক আবু সায়েম মো: আব্দুর রহমান বলেন, নির্যাতিতা গৃহবধূ নাসিমার মামলার দুইজন আসামী আদালত থেকে জামিন লাভ করেছেন। বাকী দুই আসামী প্রবাসে চলে গেছেন। আর সুমন মিয়ার করা মামলায় এফআইআরভুক্ত আসামী হিসাবে নাসিমার স্বামী আব্দুল আহাদকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।