mail.google

ফুলবাড়ী(কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি ঃ

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে যৌতুকের দাবীতে পরিকল্পিতভাবে গৃহবধু নয়নী রানী (কমলী) কে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যার অপপ্রচারকারী পাষন্ড স্বামী ও শ্বশুড় বাড়ীর লোকজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা রেকর্ড ,গ্রেফতার ও বিচারের দাবীতে মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে এলাকাবাসী । গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা সদরের তিনকোনা মোড়ে এ মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বক্তব্য রাখেন নয়নীর পিতা নরেন চন্দ্র,বড়বোন শ্যামলী রানী,বড়ভাই সুভাষ চন্দ্র,ফুলবাড়ী ডিগ্রী কলেজের পরিদর্শক বাসদ নেতা ফুলবর রহমান প্রমূখ।
অভিযোগে জানা গেছে, দুই বছর আগে উপজেলার রাবাইতারী গ্রামের মৃত প্রসন্ন চন্দ্রের পুত্র রাজমিস্ত্রি অতুল চন্দ্রের (২৫) সাথে পানিমাছকুটি গ্রামের নরেন চন্দ্রের কন্যা নয়নী রানীর(২২) বিয়ে হয় । বিয়ের সময় চুক্তি অনুযায়ী যৌতুক পরিশোধ করলেও অতিরিক্ত যৌতুকের জন্য প্রায়ই নয়নীর উপর শারিরিক নির্যাতন করতো স্বামী অতুল চন্দ্র । গত সোমবার সকালে একই কারনে নির্যাতনের এক পর্যায়ে নয়নী মারা গেলে পড়নের শাড়ী গলায় পেচিয়ে ঘরের আড়ের সাথে লাশ ঝুলিয়ে রেখে আতœহত্যার অপ-প্রচার চালায় অতুল ও তার বাড়ীর লোকজন। এক পর্যায়ে নিজেকে নির্দোষ প্রমানের জন্য ডায়েরী করতে থানায় আসলে পুলিশ অতুলকে আটকে রাখে। নরেন চন্দ্র আরও অভিযোগ করেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নিয়ে উল্টো আটক অতুলকে ছেড়ে দেয়।
ফুলবাড়ী থানার ওসি তদন্ত শাহিনুর আলম জানান, খবর পেয়ে ঘটনা স্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়েরের পর ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছ্।ে আটক অতুলকে ছেড়ে দেয়ার ব্যাপারে তিনি বলেন, সে সংবাদ দেয়ার জন্য থানায় এসেছে,তাকে আটক করা হয়নি।
এ ব্যাপারে কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার ডাঃ তবারক উল্ল্যাহ বলেন, ময়না তদন্তের রিপোর্টে হত্যার প্রমান পাওয়া গেলে অবশ্যই হত্যা মামলা দায়ের করা হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।