ফুলবাড়ী(কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি ঃ
কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে অনিয়ম দূর্নীতির  কারনে আনন্দ স্কুলের ৬৯ জন শিক্ষক/ শিক্ষিকার নিয়োগ প্রক্রিয়া দীর্ঘদিন থেকে ঝুলে রয়েছে। তালিকা প্রকাশের চার মাস পার হলেও স্কুল চালু না হওয়ায় ওই শিক্ষকরা হতাশা ও অনিশ্চয়তায় দিন কাটাচ্ছেন।
জানা গেছে, প্রাথমিক ও  গণশিক্ষা  মন্ত্রনালয়ের অধীন রিচিং আউট অব স্কুল চিলড্রেন (রক্স) প্রকল্পের আওতায় চলতি বছরের জুলাই মাসে  ২য় মেয়াদে নুতুন করে ৫ বছরের জন্য  উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের ৬৯টি কেন্দ্রে শিক্ষক/শিক্ষিকা নিয়োগের জন্য দরখাস্ত আহবান করে উপজেলা নিয়োগ কমিটি । এরপর প্রক্রিয়া শেষে ৬৯ জন শিক্ষক/শিক্ষিকার নিয়োগ অনুমোদন করে  তালিকা প্রকাশ করা হয় সে সময়। নুতুনভাবে নিয়োগকৃত শিক্ষকের মধ্যে নাওডাঙ্গা ইউনিয়নে ৮জন,শিমুলবাড়ী ইউনিয়নে ৭জন,ফুলবাড়ী ইউনিয়নে ২০জন, বড়ভিটা ইউনিয়নে ১০জন,ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নে ১৫জন এবং কাশিপুর ইউনিয়নে ৯জন। এদের মধ্যে ৬১জন মহিলা ও ৮জন পুরুষ রয়েছেন।
কিন্তু নামমাত্র মাইকিং করে গোপনে টাকার বিনিময়ে নিয়োগ অনুমোদন দেয়ার অভিযোগে জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দপ্তরে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করলে বিপাকে পড়ে উপজেলা কমিটি। জেলা প্রশাসকের নির্দেশে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) আকতার হোসেন আজাদ অভিযোগের সরেজমিন তদন্ত করে রিপোর্ট দিলে বিষয়টি পুরোপুরি ঝুলে যায়।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে তালিকা ভুক্ত একাধিক শিক্ষক জানান,এর আগে ২০১৩ সালে  উপজেলায় ৫০ টি কেন্দ্রে  ৫০ জন শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়। তাদের মধ্যে ৪৭ জন শিক্ষক নিয়মিত বেতন ভাতা উত্তোলন করছেন এবং ৩ টি কেন্দ্র বন্ধ রয়েছে।
এ ব্যাপারে রিচিং আউট অব স্কুল চিলড্রেন (রক্স) প্রকল্পের ফুলবাড়ী উপজেলা ট্রেনিং কোর্ডিনেটর রেজাউল ইসলাম বলেন, অভিযোগের তদন্তের পর থেকে কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। পরবর্তীতে চিঠি আসলে কার্যক্রম শুরু করা হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।