রাণীশংকৈল প্রতিনিধি
ঠাকুরগাওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের লাল মুক্তিবার্তা সনদ প্রাপ্ত তিন মুক্তিযোদ্ধাকে ভুয়া দাবি করে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ সিরাজুল ইসলাম মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয় বরাবরে সম্মানী ভাতা বন্ধের আবেদন করেছেন । বাদী বিবাদীর উপস্থিতিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার মোঃ নাহিদ হাসানকে সরেজমিনে তদন্তভার ৩১ মে ২০১৬ ইং তারিখের মধ্যে দেওয়া হয়। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের নির্দেশ থাকলেও অজ্ঞাত কারনে তা ধামাচাপা রেখে কালক্ষেপণ করা হয় এমন অভিযোগ অভিযুক্ত তিন মুক্তিযোদ্ধার।
উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান লাল মুক্তিবার্তা নং ০৩১০০৪০১৪৯, মোঃ ফজলুর রহমান লাল মুক্তিবার্তা নং ০৩১০০৪০১১৫ ও মোঃ সামছুল হকের লাল মুক্তিবার্তা নং ০৩১০০৪০১০৯ তিন মুক্তিযোদ্ধাকে ভুয়া দাবি করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র যাচাই শেষে লাল মুক্তিবার্তার সত্যতা থাকায় মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হক ভাতা চালু রেখে তদন্তের নির্দেশ দেন ইউএনওকে।
উপজেলা নির্বাহী কমকর্তা খন্দকার মোঃ নাহিদ হাসান বলেন, মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী অভিযুক্ত তিন মুক্তিযোদ্ধার ভাতা চালু রেখেই সরেজমিনে তদন্ত করা হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।