ইশরাত জাহান চৌধুরী, মৌলভীবাজার ঃ
মৌলভীবাজারের শিক্ষার্থীদের পূর্ণ কার্যক্রম ও গতিবিধির উপর নজরধারী এবং কোন শিক্ষার্থী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনুপস্থিত হলেই অভিভাবককে তলবের সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। জানা যায়- জেলার কুলাউড়া, জুড়ী, বড়লেখা, রাজনগর, শ্রীমঙ্গল, কমলগঞ্জ উপজেলার সব কলেজ ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অনুপস্থিত শিক্ষার্থীদের তালিকা তৈরীর কাজ শুরু হয়েছে। অপরদিকে, নজরদারি চলছে সন্দেহভাজন শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর। আর শিক্ষার্থীদের বিপথগামীতা রোধে সংস্কৃতি আর নৈতিকতা শিক্ষার ওপর জোর দিয়েছেন জেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষাবিদরা। বিশেষকরে শিক্ষার্থীদের আচরণ নজরদারীর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অনুপস্থিত থাকলেই শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের ডেকে তার সম্পর্কে তথ্য চাওয়া হবে। কেউ কোনো ধরনের উগ্রপন্থায় যুক্ত হলে কাউন্সিল টিমের কাছে পাঠানো হবে। চলমান সমাজব্যবস্থার নানা অস্থিরতা, বাড়াচ্ছে বিচ্ছিন্নতাবাদ ও হতাশা। আর এ সুযোগে তরুনদের আবেগকে বিপথে নিচ্ছে সুযোগ সন্ধানীরা। দেশে একের পর এক জঙ্গি হামলা আর হত্যাকান্ডের ঘটনাগুলোতে উচ্চশিক্ষিত তরুনদের জড়িত থাকার প্রমান মিলছে- যাদের বেশীরভাগই সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। এ জন্য শিক্ষার্থীদের গতিবিধির উপর নজরদারী বাড়ানো হয়েছে। উল্লেখ্য, জঙ্গি কর্মকান্ডের সাথে জড়িত দেশের বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সনাক্ত করেছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তাই শিক্ষার্থীদের উপর নজরদারীর ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।