রংপুরে মাদকসেবীর ছুরিকাঘাতে হারাগাছ থানার এ এস আই পিয়ারুলের মৃত্যু

শেয়ার করুন

রংপুর বিভাগীয় প্রতিনিধিঃ
রংপুরের হারাগাছে এক মাদক কারবারির ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত এএসআই পিয়ারুল ইসলাম রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছে। নিহত পিয়ারুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার বিদ্যানন্দ ইউনিয়নের চন্দ্রপাড়া গ্রামে।তার বাবার নাম মিন্টু মাস্টার। তার বাবা পেশায় একজন স্কুল শিক্ষক। এএসআই পিয়ারুল ইসলাম তিন ভাই বোনের মধ্যে সবার বড় ছিলেন। তিনি দুই সন্তানের পিতা। রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের আওতায় হারাগাছ থানায় কর্মরত ছিলেন।মৃত্যুর খবরে রাজারহাটে গ্রামের বাড়ীতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায় গত ২৪/০৯/২০২১ খ্রিঃ শুক্রবার রাত ২৩:৫০ ঘটিকায় হারাগাছ থানা এলাকায় মাদকসেবী ও মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযান চলাকালে উক্ত থানাধীন বাহার কাছনা তেলিপাড়া আহলে হাদিস জামে মসজিদ এর পিছনে রাস্তার উপর সিগারেট কোম্পানী মোড়ে এএসআই পিয়ারুল (হারাগাছ থানায় কর্মরত) একজন মাদক ব্যবসায়ীকে মাদকসহ আটক করলে মাদক ব্যবসায়ী তার হাতে থাকা ছুরি দিয়ে তার বাঁ পাঁজরে আঘাত করলে তিনি গুরুতর আহত হন এবং তাৎক্ষণিক তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর বেলা ১১ঃ১৭ মিনিটে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউর ইনচার্জ ডাঃ জামাল উদ্দিন মিন্টু।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের হারাগাছ থানার ওসি শওকত আলী সরকার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মাদক ব্যবসায়ী পলাশকে গ্রেফতার করে থানায় আনা হয়েছে।তার বিরুদ্ধে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, তিনি গত ১৫/০১/২০১১ খ্রি. বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে কনস্টেবল পদে এবং ০৬/১০/২০১৮ খ্রি. রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশে এএসআই পদে পদোন্নতি সূত্রে যোগদান করেন। রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশে যোগদানের পর তিনি সাফল্যের সাথে মাহিগঞ্জ থানা, গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি) এবং সর্বশেষ হারাগাছ থানায় কর্মরত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *