আব্দুল হাকিম রাজ,মৌলভীবাজারঃ
মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার জাহিদপুর গ্রামের এক ওমান প্রবাসীর স্ত্রী বিয়ের উপযুক্ত নিজের মেয়েকে ঘরে রেখে অন্য ২ শিশু পুত্রকে সাথে নিয়ে প্রেমের টানে প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়েছেন। ঘটনাঠি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হলে ও নিজের মেয়ের ভবিসৎত এবং ২ শিশু পুত্রের কথা ভেবে প্রবাসী ৩ সন্তানের জনক বিদেশে পাগলের বিলাপ করছে। এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়,উক্ত গ্রামের শারং মিয়া দীর্ঘদিন যাবৎ প্রবাসে অবস্থান করার কারনে স্ত্রী রেজিয়া বেগম(৩৫) পরিবারের যাবতীয় পণ্য-সামগ্রী নিজে বাজারে গিয়ে করে আনতেন। সিএনজি যোগে বাজারে আসা-যাওয়ার সুবাধে রেজিয়া বেগমের সাথে পরিচয় হয় পার্শ্ববর্তী আব্দুল্লাপুর গ্রামের সিএনজি চালক আব্দুল কাইযুমের। পরিচয়ের সুত্র ধরে মোবাইল নাম্বার আদান-প্রদান করে দু-জনের মধ্যে গড়ে উঠে পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক। রাত-বিরাতে দু-জনে ফোনে কথা-বার্তা বলে সবার অগোচরে মিলিত হতেন শারিরিক সম্পর্কে। ঘটনাঠি পাড়া-প্রতিবেশীদের মধ্যে জানাজানি হবার পর রেজিয়া বেগমের শাশুড়ী রেজিয়াকে বাড়ির বাহিরে যেতে নিষেধ করেন। নিষেধ অমান্য করে রেজিয়া বাহিরে যাওয়া-আসা অব্যাহত রাখলে এ নিয়ে একটি শালিস বৈঠকের মাধ্যমে রেজিয়াকে বাহিরে যাবার ব্যাপারে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়। গত শুক্রবার (১০ জুন) রেজিয়ার শাশুড়ী তার আন্তীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গেলে এ সুযোগে সিএনজি চালক আব্দুল কাইয়ুম রেজিয়াকে নিয়ে চম্পট দেয়।রেজিয়ার শাশুড়ী জানান, তিনি রেজিয়াকে বাড়িতে না পেয়ে ভাবছিলেন ২ সন্তানকে নিয়ে রেজিয়া তার বাপের বাড়িতে বেড়াতে গেছে। কিন্তু শনিবার রেজিয়ার বাপ আমাদের বাড়িতে আসলে ঘটনাঠি পরিস্কার হয় যে রেজিয়া তার প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়েছে। উল্যেখ্য, সিএনজি চালক কাইযুমের ও ৩ সন্তান ও স্ত্রী রয়েছে। তারা খেয়াঘাট বাজারে ইসমাইল মেম্বারের ভাড়াটিয়া বাসায় বসবাস করছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।