লালমনিরহাট প্রতিনিধি
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লালমনিরহাটের ৩টি আসনে ২৭ জনের মনোনয়ন যাচাই বাচাই শেষে ১৮ জনের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করেছেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা । স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ৮ জনের মনোনয়ন বাতিল ও একজনের স্থগিত করা হয়েছে।
রোববার (০৩ ডিসেম্বর) দিনব্যাপী পর্যালোচনা করে বিকেলে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে যাচাই ফলাফল ঘোষণা করেন লালমনিরহাট জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ উল্যাহ।

জানা গেছে, লালমনিরহাটের তিনটি আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ৩০ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। তার মধ্যে ২৭ জন প্রার্থী মনোনয়ন দাখিল করেন। যাচাই-বাছাই শেষে রোববার বিকেলে ১৮ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়। এরমধ্যে জাকের পার্টি ও সমাজতান্ত্রিক দলের দুই জন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ছয়জন এবং একজনের মনোনয়ন স্থগিত ঘোষণা করা হয় ।

লালমনিরহাট-১ (হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম) আসনের কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের অর্থ ও পরিকল্পনা উপ-কমিটির সদস্য এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আতাউর রহমান প্রধানের মনোনয় বাতিল করা হয়। কারণ হিসেবে ১ শতাংশ ভোটারের সমর্থনে ত্রুটি ধরা পরে।
এছাড়াও স্বতন্ত্র প্রার্থী আমজাদ হোসেন তাজু, আব্দুল বাকির মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয় ।
জাতীয় পার্টির হাবিবুল হক বসুনিয়া, জাকের পার্টির মানিকুর রহমান, জাসদের হাবিব মো: ফারুক, বাংলাদেশ ইসলামীক ফ্রন্টের আজম আজহারের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়।

এদিকে লালমনিরহাট-২ (আদিতমারী-কালীগঞ্জ) আসনে ১১ জন প্রার্থীর মধ্যে ৬ জনের মনোনয়ন বৈধ, ৪ জনের বাতিল ও একজনের স্থগিত ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে রবীন্দ্রনাথ বর্মন (স্বতন্ত্র), রজব আলী (সভাপতি, কালিগঞ্জ উপজেলা জাকের পার্টি), দেলাব্বর রহমান (আহ্বায়ক,বাংলাদেশ কংগ্রেস, লালমনিরহাট জেলা শাখা,মোঃ হালিমা খাতুন (স্বতন্ত্র) প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করা হয়। এছাড়াও সুবৃত্তি রানীর (মহিলা বিষয়ক সম্পাদক কালীগঞ্জ উপজেলা গণতন্ত্রী পার্টি) স্থগিত করা হয়।
এর মধ্যে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী নুরুজ্জামান আহমেদ, স্বতন্ত্র মমতাজ আলী, এনপিপির শরিফুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির দেলোয়ার হোসেন ও স্বতন্ত্র সিরাজুল হকের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়।

লালমনিরহাট -৩ (লালমনিরহাট সদর) আসনে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী জাবেদ হোসেন বক্করের মনোনয়ন বাতিল করা হয়। আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী এডভোকেট মতিয়ার রহমান, জাসদের আজমুল হক পাটোয়ারী, জাকের পার্টির সকিউজ্জামান মিয়া, বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের আশরাফুল আলম, জাতীয় পার্টির জাহিদ হাসান, এনপিপির হরিশ চন্দ্র রায় এবং তৃনমুল বিএনপির শামীম আহম্মেদ চৌধুরীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়।

বাতিলকৃত মনোনয়নের ক্ষেত্রে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ১ শতাংশ ভোটারের সমর্থনে লালমনিরহাট ১ আসনের আতাউর রহমান প্রধান ও লালমনিরহাট-৩ আসনে জাবেদ হোসেন বক্করের ত্রুটি পায় মনোনয়ন যাচাই বাচাই কমিটি।

প্রার্থীতা বাতিল হওয়া কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের অর্থ ও পরিকল্পনা উপ-কমিটির সদস্য আতাউর রহমান প্রধান বলেন, সামান্য বিষয়ে আমার মনোনয়ন টি জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা বাতিল করেছে আমি অবশ্যই উচ্চ আদালতে আবেদন করবো। প্রার্থিতা ফিরে পেয়ে ইনশাআল্লাহ লালমনিরহাট ১ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *