mail.google

রাজীবপুর(কুড়িগ্রাম)সংবাদদাতা
কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী উপজেলার সংলগ্ন ব্রহ্মপুত্র নদী বিচ্ছিন্ন চিলমারী উপজেলার নয়ারহাটের ইউনিয়ন দক্ষিণ খাউরিয়র স্কুল এন্ড কলেজে গত শনিবার জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ সমাবেশ আয়োজন করতে গিয়ে সন্ত্রাসি হামলার শিকার হয়েছেন আহত হয়েছেন ওই কলেজের অধ্যক্ষ জহুরুল ইসলাম মন্ডল।
কলেজ সূত্রে জানা গেছে নয়ারহাট ইউনিয়নের অবস্থিত দক্ষিণ খাউরিয়র স্কুল এন্ড কলেজে শনিবার সন্ত্রাসরা ও জঙ্গিবাদ বিরোধী মানবন্ধন সমাবেশ চলার সময় ওই কলেজের সাবেক সভাপতির ভাতিজা পারভেজ আহম্মেদসহ ২০ জন অতর্কিত বাঁশের লাঠি দিয়ে সমাবেশে হামলা চালায়।তারা প্রথমে অধ্যক্ষকে শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত ও পরে পিটিয়ে আহত করে।ত্রসময় ভয়ে ছাত্রছাত্রীরা পালিয়ে যায়।

ঘটনার প্রত্যক্ষ দর্শী খাউরিয়র গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য তোতা মিয়া ওকলেজের অফিস সহকারী শফিকুল ইসলাম জানান, সাবেক সভাপতি দেলওয়ার হোসেন এর ভাতিজা পারভেজ আহম্মেদসহ ১৫ থেকে ২০জন একত্রে হয়ে গত শনিবার সকাল ১১টার সময় সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ রিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠান শুরুর সময় অধ্যক্ষ উপরে হামালা করে বাঁশের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে আমরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমিক চিকিৎসা দেই।
গত কাল সোমবার রৌমারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অধ্যক্ষ জহুরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ সমাবেশ করার কারনে তারা আমার উপর হামলা চালিয়েছে।হামলাকারীরা ভিন্ন রাজনৌতিক মতাদর্শে বিশ্বাসী।
রৌমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক সাহেবুল বাশার জানান তার শারীরিক আঘাত তেমন গুরুতর নয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে ।
নয়ারহাট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু হানিফ বলেন আমি অনুষ্ঠানে আমি উপস্থিত ছিলাম না তবে অধ্যক্ষ সন্ত্রাসি হামালার শিকার হয়েছে ত্রটা শুনেছি ।
ত্র বিষয়ে জেলা শিক্ষা অফিসার মোসলেম উদ্দিন সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান অধ্যক্ষর অভিযোগ পেয়েছি বিষয়টি তদন্ত জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে বলা হয়েছে। জেলা প্রশাসক ও মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পেলে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।