আল আমিন হাসান ,

জামালপুর সরিষাবাড়ীতে পৌরসভার কাউন্সিলর কে কাঠাল গাছে বেধে নির্যাতন বিচারের আশ্বাসে জনতার হাত থেকে মুক্ত করলেন পৌর মেয়র মনির উদ্দিন । ঘটনাটি রোববার রাত দশটার দিকে সরিষাবাড়ী পৌর সভার বাউসি বাঙ্গালী পাড়ার মৃত ইউসুফ আলীর বাডীতে ঘটেছে । এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে এবং বহিস্কারের দাবীতে এলাকাবাসী গতকাল সোমবার সকাল ১১টায় পৌর মেয়র মনির উদ্দিন এর বাড়ীতে জমায়েত হয় । পরে পৌর মেয়র মনির উদ্দিন বহিস্কার করার আশ্বাষ প্রদান করলে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী তাদের কর্মসুচী প্রত্যাহার করেন।
স্থানীয় ও ভুক্তভোগী পরিবার সুত্রে জানা গেছে, সরিষাবাড়ী পৌর সভার ৯ নং ওয়ার্ডের পৌর কাউন্সিলর মোশারফ হোসেন জনৈক এক (২৭) বয়সী ২ সন্তানের জননী কে মাতৃত্বকালীন ভাতা ও শিশু কার্ড দেয়ার প্রলোভনে মোবাইল ফোনে অনৈতিক কাজ করার প্রস্তাব দিয়ে আসছিল । ওই প্রস্তাবে ওই নারী রাজী না হওয়া সত্বেও মোবাইল ফোনে বারবার ফোন করার বিষয়টি বাড়ীর লোকজন কে অবগত করেন । বিষয়টি আশে পাশে জানাজানি হলে কাউন্সিলর মোশারফ হোসেন এর এ হেন কাজের প্রতি সজাগ দৃষ্টি ও রাখেন স্থানীয়রা । কাউন্সিলর মোশারফ হোসেন এর লালসা মিঠানোর জন্য গতকাল রোববার রাত ১০ টার দিকে ওই নারীকে ফোন করে সাক্ষাৎ করার প্রস্তাব দিয়ে অল্প কিছুক্ষনের মধ্যেই তার বাড়ীর ঘরে এসে প্রবেশ করে । কৌশলে ওই নারী স্থানীয়দের অবগতকরলে স্থানীয়রা তাকে একটি ধরে ফেলে একটি গাছের সাথে হাত-পা বেধে ফেলে । এ বিষয়টি এলাকায় ছডিয়ে পড়লে হাজারো উৎসুক জনতার ভীড় জমে । অনেকেই আবেগ আপ্লুত হয়ে কাউৎিন্সলর মোশরফ হোসেনকে কিল,ঘুষি,চড়-থাপ্পড় দিতে থাকে। ফলে তার শরীরে ফুলা জখমমের সৃষ্টি হয়। এ বিষয়টি সরিষাবাড়ী থানা পুলিশ খবর পেয়ে সরিষাবাড়ী থানার এস আই হুমায়ুন কবীর , এ এস আই আতিকুর রহমান আতিক সহ পুলিশ সদস্যরা ঘটনা স্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। পৌর কাউন্সিলর মোশারফ হোসেন উপজেলার পৌর সভার বাউসী চন্দনপুর গ্রামের মুনছের ফকিরের ছেলে। সম্প্রতি পৌর কাউন্সিলর মোশারফ হোসেন আরোও দুটি নারী সংক্রান্ত ঘটনা ঘটিয়েছেন যাহা পৌর মেয়র মনির উদ্দিন গ্রাম্য সালীশ করে সমঝোতা করে দিয়েছেন বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেন ।
ভুক্তভোগী পৌর সভার চর বাঙ্গালী পাডা গ্রামের দুই সন্তানের জননী (২৭) জানান, পৌর কাউন্সিলর মোশারফ ১০ হাজার টাকায় কার্ড করে দেয়ার কথা বলে পাঁচ হাজার টাকা নেন । বাকি ৫ হাজার টাকা দেওয়ার সামর্থ নেই বলে অস্বীকৃতি জানালে এক রাতে এক ঘন্টা সময় দিলে কার্ড করে দেওয়া হবে বলে আমাকে কু-প্রস্তাব দেয়।
এ বিষয়টি গণ্যমান্য ব্যক্তিদের অবগত করলে কেউ বিশ্বাস না করলে এর প্রমাণ চান তারা।এর প্রমান স্বরুপ কু-প্রস্তাব দেয়ার প্রমাণ দিতে কাউন্সিলর সাথে মহিলাটির কথা হলে কাউন্সিলর কে রোববার রাতে আসার কথা বলার বিষয়টি গণ্যমান্য ব্যক্তিদের অবগত করেন ওই নারী। এরই ধারাবাহিকতায় রোববার রাত দশটায় কাউন্সিলর মোশাররফ হোসেন ভুক্তভোগীর ঘরে প্রবেশ করলে এলাকাবাসী সংঘটিত হয়ে পৌর কাউন্সিলর কে আটক করে গাছের সাথে বেধে রাখেন ।
এ ঘটনার খবর পেয়ে সরিষাবাড়ী পৌর মেয়র মনির উদ্দিন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে বিক্ষুবদ্ধ এলাকাবাসী লম্পট কাউন্সিলর মোশারফ হোসেন কে বহিষ্কারের দাবি জানান।
এ ব্যাপারে ঘটনাস্থলে উপস্থিত সরিষাবাড়ী থানার এস আই হুমায়ুন কবীর জানান, আমাদের কাছ থেকে কাউন্সিলর মোশারফ হোসেন কে পৌর মেয়র মনির উদ্দিন বিচার করবেন বলে এ আশ্বাষে নিয়ে যান। এ নিয়ে স্থানীয় জনতার মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে বলে জানা যায় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *