হান্ডিয়ালে চাঁদাবাজি মামলায় কথিত ২ সাংবাদিক আটক

স্টাফ রিপোর্টার
হান্ডিয়ালে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে জনতার হাতে ধরা পড়েছে মোঃ রফিকুল ইসলাম ও সোহেল রানা জয় নামের দুই তথাকথিত সাংবাদিক।
রবিবার (১৩ মার্চ) সন্ধ্যায় পাবনার চাটমোহর উপজেলার হান্ডিয়ালের বাঘলবাড়ি কৈ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

রফিকুল ইসলাম রনি হান্ডিয়ালের পাকপাড়া গ্রামের সুলতান মাহমুদের ছেলে এবং সোহেল রানা জয় হান্ডিয়ালের সিদ্ধিনগর গ্রামের আব্দুল মোতালেব এর ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান, বাঘলবাড়ি কৈ গ্রামের দরিদ্র কৃষক ছোরমান আলী এস্কেভেটর (ভেকু) দিয়ে মাটি কেটে বসতবাড়িতে মাটি ভরাটের কাজ করতেছিল।
গত ১১ মার্চ তথাকথিত ভূয়া সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম রনি ও সোহেল রানা জয় সেখানে গিয়ে ছোরমান আলীকে বিভিন্ন ভয় ভীতি দেখিয়ে ১৫ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। টাকা না দিলে প্রশাসন দিয়ে ভেকু দিয়ে মাটি খননের কাজ বন্ধ করে দেয়া হবে। গরিব কৃষক ছোরমান আলী কোন উপায়ান্তর না পেয়ে তার বউয়ের ছাগল বিক্রির ৪ হাজার টাকা তাদের হাতে তুলে দেয়। আজ আবারো তারা সেখানে গিয়ে ছোরমান আলীর কাছ থেকে দশ হাজার চাঁদা দাবি করলে সেখানে উপস্থিত জনতা এই দুইজন সাংবাদিক আটক করে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে হান্ডিয়াল তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই দুই সাংবাদিককে আটক করে চাটমোহর থানায় প্রেরণ করেন।

আটক মোঃ রফিকুল ইসলাম রনি নিজেকে সাপ্তাহিক চলনবিলের আলো পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক হিসাবে দাবী করেছেন। অপর আটক সোহেল রানা জয় নিজেকে ওই পত্রিকার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন।

তাদের বিরুদ্ধে প্রেসক্লাবের নাম ভাঙ্গিয়ে বিভিন্ন এলাকায় চাঁদাবাজির বিস্তর অভিযোগ রয়েছে।

চাটমোহর থানা অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন জানান, লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পরে ওই দুইজনের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা হয়েছে। চাঁদাবাজির অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলাটি করেছেন সোনাউল্লাহ। আসামিদের পাবনা আদালতে পাঠানো হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.