ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ
ঝালকাঠি জেলা যুব মহিলা লীগের সভানেত্রীর নেতৃত্বে হত্যার চেষ্টা, বাড়ী-ঘর ভাংচুর ও অপহরনের অভিযোগে ঝালকাঠি থানায় মামলা করেছে ভুক্তভোগী এক বিধবা নারী। এজাহার সুত্রে প্রকাশ, গত ইংরেজী ১৬ ই সেপ্টেম্বর সকাল ৭ টার সময় পুর্ব পরিকল্পিতভাবে দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে স্টেশন রোডের বাসিন্দা মৃত. শাহজাহান মৃধা’র স্ত্রী নুরুন্নাহার জাহানএর ভোগ দখলীয় বসতগৃহে জোড়পুর্বক দখল করার উদ্দ্যেশে ঝালকাঠি জেলা যুব মহিলা লীগের সভানেত্রী লুৎফুনানাহার লুনা ও তার বাবা কামরুল ইসলাম, তার স্বামী নাসির নকীব, ভাই সাইফুল ইসলামসহ তার সাথে থাকা গোলাম মাহবুব আজাদের ছেলে গোলাম মুসফিক লিয়ন ও লিনা আজাদ ও মসজিদ বাড়ী রোডের মৃত. মজিবর মুন্সী’র মেয়ে লিপি আক্তার অবৈধভাবে বসত ঘরে প্রবেশ করিলে তখন বাঁধা দিলে তখন আসামীরা ৫ লাখ টাকা চাঁদা দিতে হবে। তখন চাঁদা দিতে অস্বীকার করিলে আসামীদের হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে ঘর খানা ভাংচুর করে ও ব্যাপক লুটপাট চালায়। এ সময় তপন দাস ও মিন্টুকে হত্যার উদ্দ্যেশে কুপিয়ে জখম করে অজ্ঞাত স্থানে আটক করিয়া রাখে। পরে খোজাখুজি করে না পেয়ে গত ১৮ই সেপ্টেস্বর দুপুর আড়াইটার সময় এই মামলার স্বাক্সীদের সহায়তায় ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে মিন্টু ও তপন দাসকে উদ্ধার করে। বর্তমানে মিন্টু ও তপন দাস ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ব্যাপারে ঝালকাঠি সদর থানায় ভুক্তভোগী নুরুন্নাহার জাহান বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন যার নং-১৮।
এস আই মিলন কুমার ঘোষ তদন্ত করছেন। এ বিষয়ে এস আই মিলন জানান, মামলাটি যেহেতু তদন্তাধীন তাই এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজী নন। একটি সূত্র থেকে জানা গেছে লুনাও এই মামলার পুর্বে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন ও সাংবাদিক সম্মেলন করেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।