ভারতে জেল খেটে বেনাপোল দিয়ে ফেরত আসল শিশু নারী ও পুরুষ সহ ১৫ জন

আশানুর রহমান আশা বেনাপোল –
ভারতে ২ বছর জেল খেটে বেনাপোল চেকপোষ্ট দিয়ে দেশে ফিরেছে বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যেমে ১১ জন পুরুষ দুই জন নারী ও ২ জন বাংলাদেশী শিশু। রোবরার বিকাল সাড়ে ৫ টার সময় ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন।

ফেরত আসারা হলেনঃ কক্সবাজার জেলার আব্দুল মালেকের ছেলে মোহাম্মাদ শাহিন (২৭) গাজিপুর জেলার মোহাম্মাদ মফিজ আলম এর ছেলে উজ্জল মিয়া (২২) পাবনা জেলার তজিব উদ্দিন এর ছেলে মোতালেব হোসেন (২৩) বগুড়া জেলার আবুল হোসেনের ছেলে আশরাফ হোসেন (২৩) পটুয়াখালী জেলার রুহুল আমীন এর ছেলে সাইদুল ইসলাম (৩২) ময়মনসিংহ জেলার তোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে ফরহাদ হোসেন (৩২) নড়াইল জেলার মহন আলীর ছেলে ইকবল মোল্যা (৩৭) বাগেরহাট জেলার আবুল কালাম এর মেয়ে তাছলিমা খাতুন (২৩) একই জেলার ইকবাল মোল্যার মেয়ে তনি (৬) ও তার মেয়ে মুন্নি (৪) খুলনা জেলার দাউদ এর মেয়ে লাখি বেগম (২৪) পাবনা জেলার আছাদ মিয়ার ছেলে রিপন মিয়া (২২) একই জেলার মিনাজ সরদার এর ছেলে মিঠু সরদার (২৭) নোয়াখালী জেলার রহমান মিয়ার ছেলে সোহেল মিয়া (২৩) যশোর জেলার ননী গোপাল এর ছেলে উজ্জল কুমার (২০) ।

ফেরত আসা ইকবাল মিয়া বলেন, অভাব অনটনের সংসারে গত দুই বছর আগে তারা অভৈধ পথে ভারতের চেন্নাই শহরে পাড়ি জমায়। সেকানে ১৫ দিন কাজ করার পর সেদেশের পুলিশের কাছে আটক হয়ে পুজ্জল সেন্ট্রাল জেলে তারা দুই বছর থাকার পর আজ দেশে ফিরেছে।

বেনাপোল ইমিগ্রেশন ওসি মোহাম্মাদ রাজু বলেন, এরা ভালো কাজের আসায় সীমান্ত পথে ভারতে যায়। তাদের কাছে পাসপোর্ট ভিসা না থাকায় সেদেশের পুলিশ আটক করে জেল হাজতে পাঠায়। এরপর দুই বছর জেল খেটে আজ তারা দেশে ফিরেছে বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যেমে বেনাপোল চেকপোষ্ট দিয়ে। ইমিগ্রেশন এর আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদের বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়।

বেনাপোল পোর্ট থানার এস আই আতিয়ার রহমান বলেন, থানার আনুষ্ঠানিকতা শেষে জাস্টিস এন্ড কেয়ার নামে বেসরকারী একটি এনজিওর কাছে এদের হস্তান্তর করা হয়েছে।

যশোর জাস্টিস এন্ড কেয়ার এর সমন্বয়কারী রোকেয়া পারভিন জানায় ফেরত আসাদের যশোর তাদের নিজেদের শেল্টার হোমে নিয়ে যাওয়া হবে। এরপর তাদের সেখানে রেখে পরিবার এর সাথে যোগাযোগের মাধ্যেমে হস্তান্তর করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.