এক নারী গ্রাম পুলিশকে সংবর্ধিত করলো জয়পুরহাট জেলা পুলিশ

ফারহানা আক্তার,জয়পুরহাট প্রতিনিধি:

স্বামীর নির্মম হত্যা কান্ডের পর সকল প্রতিকূলতা জয় করে দু’মেয়েকে ডাক্তার ও ইঞ্জিনিয়ার করার জন্য এক নারী গ্রাম পুলিশ সাজেদা বেগম ও তার মেয়ে খুর্শিদা পারভিন ওরফে পলিকে ক্রেস্ট ও উপহার সামগ্রী প্রদান করেছেন পুলিশ সুপার মাছুম আহাম্মদ ভূঞা। মঙ্গলবার বিকেলে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে এ সংবর্ধন করা হয়। পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, জেলার ক্ষেত্রলাল উপজেলার মামুদপুর ইউনিয়নের আয়মাপুর, মিনিগাড়ি, কোনাপাড়া গ্রামের দায়িত্বরত গ্রাম পুলিশ ছিলেন আব্দুল জলিল সরদার। ২০০৬ সালে ডিসেম্বর মাসের ১৩ তারিখে ক্ষেতলাল উপজেলার ফঁাসিতলা এলাকায় রাত্রীকালীন ডিউটি পালনকালে কতিপয় দুর্বৃত্তরা আব্দুল জলিল সরদার সহ তিনজন গ্রাম পুলিশকে জবাই করে হত্যা করে। আব্দুল জলিল সরদার মারা যাওয়ার সময় তার দুইটি মেয়ে মুর্শিদা পারভিন ওরফে জলি (১৮) ও খুর্শিদা পারভিন ওরফে পলি (১৩) এবং তার স্ত্রী সাজেদা বেগমকে রেখে যান। তার অকাল মৃত্যুতে সাজেদা বেগম তার সন্তানদের নিয়ে মহাবিপদে পড়েন। ২০০৪ সালে সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা লোকমান হাকিম চাকরি সুবাদে আব্দুল জলিল সরদার সাথে পরিচয় ঘটে। সে সময়ে দুই পারিবারিকভাবে সু-সম্র্পক গড়ে উঠে। আব্দুল জলিল এর মৃত্যুর পরে তার স্ত্রী সাজেদা বেগমের স্বল্প রোজগারে যখন তার কন্যাদের লেখাপড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয় তখন পুলিশ সদস্য লোকমান হাকিম তাদের দুই কন্যার লেখাপড়ার দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। জীবিকা নির্বাহ ও তার দুই মেয়ের লেখাপড়ার খরচ বহনের জন্য আব্দুল জলিল সরদারের শূন্য পদে জেলার মামুদপুর ইউনিয়নের ওই ওয়ার্ডে গ্রাম পুলিশের চাকুরীতে যোগদান করেন তার স্ত্রী সাজেদা বেগম। তার বড় মেয়ে মুর্শিদা পারভিন ওরফে পলি ৩৯তম বিসিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে স্বাস্থ্য ক্যাডারে উর্ত্তীণ হয়ে ২০১৯ সালে মেডিকেল অফিসার হিসাবে চাকুরীতে যোগদান করেছে। আর ছোট্ট মেয়ে খুর্শিদা পারভিন ওরফে পলি ২০১৭ সালে রাজশাহী ইউনিভার্সিটি অফ ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি (রুয়েট) থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করে। তিনি জীবন সংগ্রামে জয়ী হওয়া সত্যিকারের একজন জয়িতা। তার সংগ্রামী জীবনের প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে জয়পুরহাট জেলা পুলিশ তাকে সংবর্ধনা প্রদান করে।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) তরিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোসফেকুর রহমান, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (পাঁচবিবি সার্কেল) ইশতিয়াক আলম, জেলা মহিলা আ’লীগের সভাপতি শাম্মীম আজিজ সাজ, বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থার প্রতিনিধি মাহবুবা সরকার, হৈমন্তী সরকার, আইরিন সুলতানাসহ জেলার সকল থানা হতে আগত নারী পুলিশ সদস্যবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.