বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৮:৪৬ পূর্বাহ্ন
Logo
শিরোনাম :
কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত‍্যাবর্তন দিবস সভা ও আলোচনা জয়পুরহাটে পৃথক পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ১ আহত ১ পুলিশের নাম ভাঙিয়ে টাকা নিতেন মৎস্যজীবী লীগ নেতা নীলফামারীতে মায়ের সাথে অভিমান করে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা নীলফামারী ডোমারে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ ফেইসবুক এ পোস্ট দেখে চিকিৎসার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন যুবলীগ নেতা ছবির হোসেন খানসামা উপজেলা চেয়ারম্যান পদে উপ নির্বাচনে মনোনয়ন জমা দিলেন ৪ প্রার্থী ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের উদ্যোগে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে নগদ অর্থ বিতরন চিলমারীতে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত‍্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত জয়পুরহাটে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য আনন্দ র‍্যালী
বিজ্ঞাপন :
আপনি কি ওয়েবসাইট তৈরীর কথা ভাবছেন? আপনার নিজস্ব একটি নিউজ সাইট দরকার? অথবা আপনার ব্যবসার প্রসারের জন্য সুন্দর একটি ওয়েবসাইট তৈরী করতে চান? দেরি না করে, এখনি যোগাযোগ করুন ০১৭১৭০৯৭৪৯৭ | ইমেইলঃ: nuraminlebu@gmail.com

সেদিনের পর জীবনের প্রতিটা দিনই বোনাস; তখন থেকেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করছি- বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা.এম আমজাদ

এশিয়ান বাংলা ডেস্ক / ১৫ জন দেখেছেন
আপডেট : সোমবার, ২৮ মার্চ, ২০২২

এস.এম.রকিঃ
স্বাধীনতার সূর্বণজয়ন্তীতে সকলকে স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে মুক্তিযুদ্ধের লোমহর্ষক কাহিনি বলতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা.এম আমজাদ হোসেন বলেন, যুদ্ধের সময় পাকিস্তানি সেনারা তিন দিক থেকে ঘিরে ফেলে মুক্তিযোদ্ধাদের। ওই অবস্থায় যুদ্ধ করতে করতে নষ্ট হলো নিজের এলএমজি। গুলিবিদ্ধ হলেন দুই পায়ে, ভেঙে গেল এক পা। পড়ে গেলেন ধানখেতে। ধরে নেন ওই দিনই জীবনের শেষ দিন। কিন্তু এক সহযোদ্ধা নিজের জীবনের বিনিময়ে রক্ষা করে যান তাঁদের। তাই সেদিনের পর থেকে আজ পর্যন্ত জীবনের প্রতিটি দিনই বোনাস।

অধ্যাপক আমজাদ হোসেন দেশবরেণ্য অর্থোপেডিক সার্জন। স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে গৌরব ও মর্যাদাপূর্ণ রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ পুরস্কার “স্বাধীনতা পদক” প্রাপ্ত গুণী এই চিকিৎসক ১৯৫৩ সালের ৫ই জুলাই উত্তরের জেলা দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার দক্ষিণ সুখদেবপুর গ্রামের এক সাধারণ কৃষক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম মরহুম আব্দুল বাকী মন্ডল এবং মাতার নাম আলহাজ্ব আমেনা খাতুন। দুই সন্তানের জনক অধ্যাপক ডা.আমজাদ হোসেন ও ডা.শামীমা আমজাদ দম্পতির বড় ছেলে আজমত হোসেন (সৈকত) ইংল্যান্ডের এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার’স এন্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে পড়াশুনা করছেন ও মেয়ে আফিয়া তাসনিম (শর্মী) ওয়াশিংটনের ওয়ার্ল্ড ব্যাংকে কর্মরত। অধ্যাপক ডা.এম আমজাদ হোসেন ১৯৬৮ সালে চিরিরবন্দর উচ্চ বিদ্যালয় হতে মাধ্যমিক ও ১৯৭০ সালে দিনাজপুর সরকারী কলেজ হতে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন। ছাত্র অবস্থা থেকেই বঙ্গবন্ধুর আর্দশের অনুসারী তিনি ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণে উদ্বুদ্ধ হয়ে তিনি স্বইচ্ছায় মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে তৎকালীন দিনাজপুরের কামারপাড়া, রায়গঞ্জ ও সিলিগুড়ি ক্যাম্পে উচ্চতর প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত হয়ে ৭নং সেক্টরের অধীনে টিম লিডার হিসেবে সরাসরি দিনাজপুর বড় গ্রাম, নিউটাউন ও রুদরানীসহ বিভিন্ন পাকিস্তানি ক্যাম্প ও স্থাপনার উপরে গেরিলা আক্রমণ করেন। অতঃপর ১৯৭১ সালের ৩১ জুলাই ফুলবাড়ী ভেড়াম গ্রামে এক গেরিলা যুদ্ধে শত্রু সেনাদের সঙ্গে সম্মুখ যুদ্ধে দু’পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন এবং তাঁর সহযোদ্ধা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর হোসেন শহীদ হন। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় রক্তাক্ত আমজাদ হোসেনকে বালুরঘাট সরকারী হাসপাতাল এবং লক্ষ্মৌ ও বিহারের রামগড় সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেন। এরপরে যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আমজাদ হোসেন ১৯৭৮ সালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হতে এমবিবিএস ডিগ্রি লাভ করেন ও ১৯৮৬ সালে অর্থোপেডিক বিষয়ে এম এস ডিগ্রি অর্জন করেন। চিকিৎসার সুবাদেই দেখা হয় আমেরিকান চিকিৎসক ডা.আর জে গাষ্টের সাথে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ করে চিকিৎসক হয়ে ডা. গাষ্টের আহবানে সরকারি কাজের পাশাপাশি অবৈতনিক ভাবে যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসার জন্য বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যান ট্রাষ্টে দায়িত্ব পালন করেন।

এমবিবিএস ডিগ্রি লাভ করে পার্বতীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মেডিকেল অফিসার হিসাবে কাজ করেন এরপরে তিনি সহকারী, সহযোগী ও অধ্যাপক হিসেবে নিটর, সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং ঢাকা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ২০০৮ সালে চাকুরী হতে স্বেচ্ছায় অবসর নিয়ে ল্যাবএইড স্পেশালাইড হাসপাতালে অর্থোপেডিক সার্জারী বিভাগে চীফ কনসালটেন্ট হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন। অর্থোপেডিক সার্জারী চিকিৎসায় তিনি বাংলাদেশে বৈপ্লবিক পরিবর্তন নিয়ে আসার অন্যতম কারিগর।

এবার শুরু করলেন রণাঙ্গনের সেই ভয়াবহ দিনের গল্প। আমজাদ হোসেন বলেন, ‘দিনটা ছিল একাত্তরের ৩১ জুলাই। ওই দিন রাতে আমার নেতৃত্বে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার ভেরাম গ্রামে হানাদার বাহিনীর ক্যাম্পে আমরা গেরিলা হামলা চালাই। কিন্তু রাজাকারেরা আমাদের অভিযানের খবর আগেভাগেই জানতে পেরে পাকিস্তানি আর্মিকে জানিয়ে দেয়। পাকিস্তানি আর্মি আমাদের তিন দিক থেকে ঘিরে ফেলে। আমরা সামনে সাতজন আর পেছনে সাতজন। আর ওরা ছিল মোট ২৯ জন। সামনের সারিতে সবার ডানে ছিলেন মোজাফ্ফর নামে এক মুক্তিযোদ্ধা। আমার এলএমজি হঠাৎ বন্ধ হয়ে গেলে আমি দাঁড়িয়ে পেছনে ফেরার চেষ্টা করি। এ সময় আমার দুই ঊরুতে গুলি লাগে। একটি পা ভেঙে যায়। আমি ধানখেতে পড়ে যাই। মোজাফ্ফর যুদ্ধ চালিয়ে আমাদের কভার ফায়ার দিতে থাকেন আর আমাদের পিছু হটতে বলেন। এ সময় একটি গুলি মোজাফ্ফরের কপালে বিদ্ধ হয়। তিনি সেখানেই শহীদ হন। পেছন থেকে আরও মুক্তিযোদ্ধা এসে যোগ দিলে পাকিস্তানি সেনারা ধীরে ধীরে পিছু হটে। তারপর আমরা মোজাফ্ফরকে সীমান্তের কাছাকাছি এনে দাফন করি। সহযোদ্ধারা আমাকে সেখান থেকে বাঁশের খাটিয়ায় নদী পার করে সীমান্ত পেরিয়ে বালুরঘাট হাসপাতালে নিয়ে যায়।’

এক নিশ্বাসে গল্পটা বলে গেলেন আমজাদ হোসেন। এরপর একটু সময় নিয়ে বললেন, ‘সেদিন যুদ্ধের ময়দানে তো আমার বুকেও গুলি লাগতে পারত। তা লাগেনি। তাই সেদিনের পর থেকে প্রতিটি দিনই জীবনে বোনাস বলে ধরে নিয়েছি।’ তারপর থেকেই নিজের অবস্থান থেকে মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। যার চিরিরবন্দর উপজেলায় আমেনা-বাকী রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজ তৈরী করেছি। যা শিক্ষা ক্ষেত্রে পরিবর্তন এনেছে। এতে শিক্ষা নগরী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে চিরিরবন্দর। এর সাথে দেশ ও দশের প্রয়োজনে কাজ করার স্বীকৃতি হিসেবে ২০২১ সালে সমাজসেবায় স্বাধীনতা পদকে ভূষিত করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এজন্য ওনার প্রতি আমি আজীবন কৃতজ্ঞ।

অধ্যাপক ডা. এম আমজাদ হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে যেই স্বপ্ন নিয়ে যুদ্ধে গেছিলাম তা বাস্তবায়নে কাজ করছে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রিয় প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা ও শেখ হাসিনা’র আধুনিক ও উন্নত বাংলা বিনির্মাণে আমৃত্যু কাজ করে যেতে চাই। এই জন্য সকলের কাছে দোয়া, পরামর্শ ও সহযোগিতা কামান করছি।

Oceantechbd Agency

Oceantechbd agency promotional ads.


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

এজাতীয় খবর
আক্রান্ত

১,৯৫৩,০৮১

সুস্থ

১,৮৯৯,৮৯৭

মৃত্যু

২৯,১২৭

  • জেলা সমূহের তথ্য
  • ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২,৭১৪
  • বরগুনা ১,০০৮
  • বগুড়া ৯,২৪০
  • চুয়াডাঙ্গা ১,৬১৯
  • ঢাকা ১৫০,৬২৯
  • দিনাজপুর ৪,২৯৫
  • ফেনী ২,১৮০
  • গাইবান্ধা ১,৪০৩
  • গাজীপুর ৬,৬৯৪
  • হবিগঞ্জ ১,৯৩৪
  • যশোর ৪,৫৪২
  • ঝালকাঠি ৮০৪
  • ঝিনাইদহ ২,২৪৫
  • জয়পুরহাট ১,২৫০
  • কুষ্টিয়া ৩,৭০৭
  • লক্ষ্মীপুর ২,২৮৩
  • মাদারিপুর ১,৫৯৯
  • মাগুরা ১,০৩২
  • মানিকগঞ্জ ১,৭১৩
  • মেহেরপুর ৭৩৯
  • মুন্সিগঞ্জ ৪,২৫১
  • নওগাঁ ১,৪৯৯
  • নারায়ণগঞ্জ ৮,২৯০
  • নরসিংদী ২,৭০১
  • নাটোর ১,১৬২
  • চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৮১১
  • নীলফামারী ১,২৮০
  • পঞ্চগড় ৭৫৩
  • রাজবাড়ী ৩,৩৫২
  • রাঙামাটি ১,০৯৮
  • রংপুর ৩,৮০৩
  • শরিয়তপুর ১,৮৫৪
  • শেরপুর ৫৪২
  • সিরাজগঞ্জ ২,৪৮৯
  • সিলেট ৮,৮৩৭
  • বান্দরবান ৮৭১
  • কুমিল্লা ৮,৮০৩
  • নেত্রকোণা ৮১৭
  • ঠাকুরগাঁও ১,৪৪২
  • বাগেরহাট ১,০৩২
  • কিশোরগঞ্জ ৩,৩৪১
  • বরিশাল ৪,৫৭১
  • চট্টগ্রাম ২৮,১১২
  • ভোলা ৯২৬
  • চাঁদপুর ২,৬০০
  • কক্সবাজার ৫,৬০৮
  • ফরিদপুর ৭,৯৮১
  • গোপালগঞ্জ ২,৯২৯
  • জামালপুর ১,৭৫৩
  • খাগড়াছড়ি ৭৭৩
  • খুলনা ৭,০২৭
  • নড়াইল ১,৫১১
  • কুড়িগ্রাম ৯৮৭
  • মৌলভীবাজার ১,৮৫৪
  • লালমনিরহাট ৯৪২
  • ময়মনসিংহ ৪,২৭৮
  • নোয়াখালী ৫,৪৫৫
  • পাবনা ১,৫৪৪
  • টাঙ্গাইল ৩,৬০১
  • পটুয়াখালী ১,৬৬০
  • পিরোজপুর ১,১৪৪
  • সাতক্ষীরা ১,১৪৭
  • সুনামগঞ্জ ২,৪৯৫
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর | স্পন্সর - একতা হোস্ট

ডাউনলোড করুন টাকা আয়ের মোবাইল এ্যাপ

download

বিশ্বে করোনা ভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১,৯৫৩,০৮১
সুস্থ
১,৮৯৯,৮৯৭
মৃত্যু
২৯,১২৭
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
৫২০,৪৬০,৬৫৮
সুস্থ
মৃত্যু
৬,২৬২,২২৯
ডিজাইন ও ডেভলপ করেছেন নুর আমিন লেবু