গ্রন্থমেলায় ড. উম্মে বুশরা সুমনার কিশোর উপন্যাস ‘গল্পে গল্পে বিজ্ঞান’ সিরিজ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বর্তমান যুগ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগ। শিশু কিশোরেরা বিজ্ঞানের দিকে ঝুঁকছে। কিন্তু কিছু মানুষ বিজ্ঞান আর ইসলামকে পরস্পর প্রতিপক্ষ হিসেবে তুলে ধরছে। ফলে শিশু কিশোরদের অবচেতন মনে ইসলাম বিদ্বেষ ঢুকে যাচ্ছে। তাদের মধ্যে নিজের ধর্ম নিয়ে সংশয় তৈরি হচ্ছে। তাই ইসলাম এবং আধুনিক বিজ্ঞান সমন্বিত শিক্ষা খুবই প্রয়োজন। এই লক্ষ্যে ২০২২ বইমেলায় ডক্টর উম্মে বুশরা সুমনা রচিত ‘গল্পে গল্পে বিজ্ঞান’ সিরিজ প্রকাশিত হয়েছে। বইগুলো প্রকাশ করেছে গার্ডিয়ান পাবলিকেশন্স।

এই সিরিজে রয়েছে কিশোর উপযোগী মোট চারটি উপন্যাস। পাঁচ বন্ধুর বিভিন্ন ঘটনা নিয়ে বর্ণীত ভিন্ন স্বাদের, বিজ্ঞানের চার বিষয় নিয়ে গল্পগুলো সাজানো হয়েছে। এই সিরিজের বইগুলো হলো, দুই মেরুর হয় নাকো দেখা, বাঁশ বাগানের ভূত, নুর হোসেনের আলোর ম্যাজিক, চলো সমুদ্রে যাই। চারটি বইয়ে বিজ্ঞানের চারটি বিষয় ফোকাস করা হয়েছে, চুম্বক, তাপ, আলো এবং পানি বিজ্ঞান। গল্পগুলো কোনোটি অ্যাডভেঞ্চারাস, কোনোটি থ্রিলার আবার কোনোটি ভ্রমণ কাহিনী। তবে সবগুলোতেই নৈতিক এবং ধর্মীয় শিক্ষা রয়েছে।

২০১৮ সালে তাঁর লেখা ছয় খণ্ডের শিশুতোষ নৈতিক গল্প, ‘আমি হতে চাই’ সিরিজ গার্ডিয়ান পাবলিকেশন্স থেকে প্রকাশিত হয়। এবার ২০২২ বইমেলায় তাঁর লেখা দুটি সিরিজ প্রকাশিত হয়েছে। চার থেকে আট বছর বয়সী শিশুদের জন্য পাঁচ খণ্ডের ‘গল্পে আনন্দে আদব’ শিখি প্রকাশ করেছে ফিউচার উম্মাহ বিডি। এই গল্প সিরিজে সাধারণ জ্ঞান এবং ধর্মীয় জ্ঞানের অপূর্ব সমন্বয় করা হয়েছে। রঙিন ও বর্ণীল ছবি এবং শিশু উপযোগী ভাষা। বইগুলো শায়খ আহমাদুল্লাহ পর্যবেক্ষণ করেছেন এবং শিশুদের জন্য উপকারী বলে মতামত দিয়েছেন। এই বইগুলো পাওয়া যাচ্ছে মাতৃভাষা প্রকাশ, ২৭০ নাম্বার স্টলে।
শিশু-কিশোরদের বিজ্ঞানমনস্ক এবং একই সাথে ইসলামি মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার উদ্দেশ্যে লেখা হয়েছে, ‘গল্পে গল্পে বিজ্ঞান’ সিরিজ। প্রকাশ করেছে গার্ডিয়ান পাবলিকেশন্স। বইগুলো পাওয়া যাচ্ছে অমরাবতী ৫৬ নাম্বার স্টলে।

লেখক পরিচিতি
ডক্টর উম্মে বুশরা সুমনা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি অনুষদ থেকে মাস্টার্স পাস করেন এবং পরবর্তীতে ক্লিনিক্যাল ফার্মেসী ও ফার্মাকোলজী ডিপার্টমেন্ট থেকে পিএইচডি ডিগ্রী লাভ করেন। বর্তমানে মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ফার্মেসী ডিপার্টমেন্টে অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর হিসেবে কর্মরত আছেন।

তিনি কিশোরী বয়স থেকেই লেখালেখি করে আসছেন। অষ্টম শ্রেণিতে তার প্রথম লেখা ডেইলি স্টারে প্রকাশিত হয়। এরপর বেশ কিছু গল্প ও প্রবন্ধ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় এবং ব্লগে প্রকাশিত হয়। শিশুদের পাঠ্যপুস্তকের অতিরিক্ত চাপ নিয়ে লেখা কলাম ‘আমাকে একটু ভালোবেসে পড়াও’ এর জন্য দৈনিক ইত্তেফাক দ্বারা তিনি পুরস্কৃত হন।
২০১৮ সালের একুশে বইমেলায় ‘বলয় ভাঙার গল্প’ নামে তার প্রথম গল্পগ্রন্থ প্রকাশিত হয়। ২০২০ সালে গার্ডিয়ান পাবলিকেশন্স থেকে ছয় খণ্ডের শিশুতোষ নৈতিক গল্প ‘আমি হতে চাই’ সিরিজ প্রকাশিত হয় এবং ব্যাপক জনপ্রিয় হয়। ২০২২ বইমেলায় পাঁচ খণ্ডের শিশুতোষ সিরিজ, ‘গল্পে আনন্দে আদব শিখি’ এবং চার খণ্ডের কিশোর উপন্যাস ’গল্পে গল্পে বিজ্ঞান সিরিজ’ প্রকাশিত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.