লালমনিরহাটে ৭ম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা – প্রেমিকের বিরুদ্ধে মামলা

এস.বি-সুজন, লালমনিরহাট প্রতিনিধি :

লালমনিরহাট সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের সাতপাটকী গ্রামে জান্নাতী আক্তার নামে ৭ম শ্রেণির এক ছাত্রী আত্মহত্যার ঘটনায় প্রেমিক জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনা মামল করা হয়েছে। শুক্রবার (৮ এপ্রিল) রাতে জান্নাতীর মা হাশি বেগম বাদী হয়ে আত্মহত্যার প্ররোচনারকারী জাহাঙ্গীর আলমকে আসামি করে লালমনিরহাট সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

প্রেমিক জাহাঙ্গীর বিয়ে করতে অস্বীকার করায় গলায় ফাঁস দিয়ে জান্নাতী আক্তার আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ করেছে মেয়েটির পরিবার। জান্নাতী আক্তর লালমনিরহাট সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের সাতপাটকী গ্রামের রিক্সা চালক মামুন মিয়ার মেয়ে এবং স্থানীয় মহেন্দ্রনগর উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, স্কুল ছাত্রী জান্নাতীর আক্তারের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল জাহাঙ্গীর আলমের। পরে প্রেমের সম্পর্ক দৈহিক সম্পর্কে গড়ায়। সম্পর্ক গভীর হলে প্রেমিকা জান্নাতী বিয়ের জন্য প্রেমিক জাহাঙ্গীরকে চাপ দেয়। এরই এক পর্যায়ে গত ২৯ মার্চ স্কুল থেকে ফেরার পথে জান্নাতীকে একটি নির্জন স্থানে নিয়ে যায় প্রেমিক জাহাঙ্গীর। সেখানে পুনরায় দৈহিক সম্পর্ক করার পর জান্নাতী পুনরায় বিয়ের জন্য চাপ দিলে প্রেমিক জাহাঙ্গীর ক্ষিপ্ত হয়ে প্রেমিকা জান্নাতীকে মারধর করে। বিষয়টি স্থানীয় লোকজনের মধ্যে জানাজানি হলে ওই দিনই বিকেলে নিজ বাড়িতে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে স্কুল ছাত্রী জান্নাতী।

এদিকে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে প্রেমিক জাহাঙ্গীরের পরিবার স্থানীয়ভাবে আপোষ মিমাংসার চেষ্টা চালাতে থাকলে জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে মেয়ের আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে শুক্রবার রাতে লালমনিরহাট সদর থানায় মামলা করা হয়।

এ বিষয়ে লালমনিরহাট সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ্ আলম বলেন, জান্নাতী আত্মহত্যার ঘটনায় ওই দিনই থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা করা হয়েছে। আজ আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ পেলাম। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.